উহান শহরেই করোনা সংক্রমনের ভূমিকা রয়েছে : বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

নিউজ ডেস্কঃ

গত বছর ডিসেম্বর মাসে চীনের উহান শহরের এক বাজার থেকেই বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়ে করোনাভাইরাস কোভিড-১৯। এ বছর জানুয়ারিতে করোনাভাইরাসের বিস্তার শুরু হতেই চীনা কর্তৃপক্ষ বাজারটি বন্ধ করে দেয় এবং বন্যপ্রাণী কেনা-বেচায় সাময়িক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প শুরু থেকেই করোনাভাইরাস বিস্তারের জন্য চীনকে দায়ী করে আসছেন। সম্প্রতি তিনি দাবি করেছেন, উহানের একটি ভাইরোলজি ল্যাব থেকে করোনার ছড়িয়ে পড়ার প্রমাণ তিনি দেখেছেন। এই ইস্যুতে চীনের বিরুদ্ধে শুল্কারোপের হুমকিও দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। সে দেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একটি প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে, চীন ইচ্ছাকৃতভাবে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ে কাছে করোনাভাইরাসের ভয়াবহতা সম্পর্কিত তথ্য গোপন করেছিল।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা শুরু থেকেই বলে আসছে, করোনাভাইরাসের উৎস প্রাকৃতিক, এটি ল্যাব থেকে ছড়ায়নি। ট্রাম্প সংস্থাটির অবস্থানকে চীনঘেষা আখ্যা দিয়ে তহবিল স্থগিত করেছে। এমন পরিস্থিতিতে ডব্লিউএইচও ভাইরাসের উৎস সম্পর্কে তদন্তে অংশগ্রহণের জন্য চীনের প্রতি আহ্বান জানায়। তবে চীন সেই আহ্বানে সাড়া দেয়নি।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার খাদ্য নিরাপত্তা এবং জেনেটিক ভাইরাস বিশেষজ্ঞ ড. পিটার বেন এম্বারাক শুক্রবার বলেছেন, ‘এটি পরিষ্কার যে, করোনা বিস্তারে ওই বাজারের একটা ভূমিকা রয়েছে। তবে সেটা কী ধরনের ভূমিকা, তা স্পষ্ট নয়।এটা হয়তো কাকতালীয়ও হতে পারে। ভাইরাসটি বাজারে এবং এর আশে পাশে কিছু এলাকায় শনাক্ত হয়েছিল।’

জেনেভায় এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘বাজারে আনা বন্য বা সামুদ্রিক প্রাণী কিংবা এসবের বিক্রেতা নাকি অন্য কোনো উৎস থেকে এটা ছড়িয়ে পড়েছে, তা পরিষ্কার বলা যাচ্ছে না।’ তদন্তের মধ্য দিয়েই এ সম্পর্কে যথাযথ তথ্য জানা সম্ভব বলে মন্তব্য করেন তিনি।

  •  
  •  
  •  
  •