কসোভোর প্রধানমন্ত্রী আবদুল্লাহ করোনায় আক্রান্ত

নিউজ ডেস্কঃ

কসোভোর প্রধানমন্ত্রী আবদুল্লাহ হোতি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। যদিও, তাঁর শরীরে করোনার গুরুতর কোনও উপসর্গ নেই। বার্তা সংস্থা সূত্রে খবর, দক্ষিণ-পূর্ব ইউরোপের মুসলিম প্রধান এই দেশটির প্রধানমন্ত্রী বর্তমানে বাড়িতেই আইসোলেশনে রয়েছেন।

রবিবার (২ অগস্ট) রাতে নিজেই ফেসবুক পোস্টে করোনা আক্রান্তের খবর দিয়েছেন। বলকান রাষ্ট্রের প্রধানমন্ত্রী হোতি তাঁর সোশ্যাল অ্যাকাউন্টে লেখেন, ‘আজ আমি কোভিড-১৯ পরীক্ষা করিয়েছি। টেস্ট রেজাল্ট পজিটিভ এসেছে।’

আবদুল্লাহ জানান, তিনি ১৪ দিনের সেলফ আইসোলেশন শুরু করেছেন। এই সময় বাড়িতে বসেই তিনি তাঁর দায়িত্ব পালন করবেন। হতি বলেন, ‘সামান্য কাশি ছাড়া আমার করোনাভাইরাসের আর তেমন কোনও উপসর্গ নেই।’

চলতি বছরের জুনের শুরুতে তিনি কসোভোর প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন। বলকান অঞ্চলের বাকি অঞ্চলের মতো কসোভোতেও জুন থেকে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধি পেতে শুরু করে। কসোভো ইউরোপের সবচেয়ে দরিদ্র দেশগুলোর অন্যতম। ফলে দেশটির চিকিৎসাব্যবস্থা খুবই দুর্বল।

প্রায় ১৮ লক্ষ জনসংখ্যার এই দেশটিতে এ পর্যন্ত করোনাভাইরাসে ২৪৯ জন প্রাণ হারিয়েছেন। সংক্রামিত প্রায় ৯ হাজার। কোভিড পরিস্থিতি সামলাতে ব্যর্থ হওয়ায়, সমালোচনার মুখে পড়েছে আবদুল্লাহ হোতির সরকার। এ নিয়ে এর আগে মানুষজন বিক্ষোভও করেছেন। করোনা সংকটের শুরুতে এমন বিক্ষোভ দেশটির রাজনৈতিক স্থিতিশীলতাকেও হুমকির মুখে ফেলে দিয়েছিল।

এদিকে, গোটা বিশ্বে করোনা সংক্রামিতের সংখ্যা সোমবার ১ কোটি ৮৪ লক্ষ ছাড়িয়েছে। মৃত্যু হয়েছে ৬ লক্ষ ৯৬ হাজার ৭৫১ জনের। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১ কোটি ১৬ লক্ষ ৬০ হাজার আক্রান্ত। গত ২৪ ঘণ্টায় সবথেকে বেশি সংক্রমণ ধরা পড়েছে ভারতে। ৫০ হাজার ৬২৯টি পজিটিভ কেস পাওয়া গিয়েছে। গোটা দিনে মৃত্যু হয়েছে ৮১০ জনের। ভারতে এই মুহূর্তে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১৮ লক্ষ ৫৫ হাজার ৩৩১। সংক্রমণের শীর্ষে আমেরিকাই রয়েছে। ৪৮ লক্ষ ৬০ হাজার ৬৯০ জন আক্রান্ত। মৃত্যু হয়েছে ১ লক্ষ ৫৮ হাজার ৯০১ জনের। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় পজিটিভ ৪৭ হাজার ৬৬২। ব্রাজিলে করোনায় মৃতের সংখ্যা ৯৪ হাজার ছাড়িয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ৫৭২ জনের। গত ২৪ ঘণ্টায় প্রায় ১৮ হাজার নতুন সংক্রমণ-সহ আক্রান্ত বেড়ে হয়েছে ২৭ লক্ষ ৫১ হাজার ৬৬৫। মেক্সিকোয় মৃতের সংখ্যা প্রায় ৪৮ হাজারে পৌঁছেছে। কোভিড মৃত্যুর নিরিখে আমেরিকা ও ব্রাজিলের পরেই রয়েছে মেক্সিকো। আক্রান্তের সংখ্যা ৪ লক্ষ ৩৯ হাজার।

  •  
  •  
  •  
  •