বয়স্কদের ক্ষেত্রে দ্বিতীয়বার করোনায় আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বেশি!

corona old

নিউজ ডেস্কঃ

ডেনমার্কের এক সমীক্ষায় দেখা গেছে দ্বিতীয় বার করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার ঘটনা বিরল। তবে ৬৫ বছরের বেশি বয়স্ক মানুষরা অল্পবয়সীদের তুলনায় দ্বিতীয় বার করোনায় আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকিতে বেশি থাকেন।

প্রথম পুনরায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার ঘটনা ২০২০ সালের আগস্টে ঘটে। স্বাস্থ্যসেবা কর্মীদের মতে একবার যারা করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন তারা অন্তত পরবর্তী পাঁচ মাস সুরক্ষিত থাকেন।

ডেনমার্কে ২০২০ সালের মার্চ থেকে মে মাসে ১১০৬৮ জন মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন যাদের মধ্যে মাত্র ৭২ জন অথবা ০.৬৫ শতাংশ মানুষ পুনরায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। তবে বসন্তে ৫ লাখ ১৪ হাজার মানুষের করোনা রিপোর্ট নেগেটিভ আসলেও পরবর্তী ঢেউয়ে ১৬৮১৩ বা ৩.২৭ পার্সেন্ট পুনরায় আক্রান্ত হয়েছেন।

এসব সমীক্ষা হতে দেখা যায় প্রথমবার করোনায় আক্রান্ত হলে দ্বিতীয়বার আক্রান্ত হওয়ার ক্ষেত্রে তা ৮০ শতাংশ সুরক্ষা প্রদান করে (৬৫ বছরের কমবয়সীদের ক্ষেত্রে) এবং ছয়মাস পর্যন্ত শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা হ্রাসের কোন প্রমাণ পাওয়া না গেলেও ৬৫ বছরের বেশি বয়স্কদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ৪৭ শতাংশ কমে যায়।

আরও বেশি সংক্রামক করোনাভাইরাসের রুপগুলো ডেনমার্কে ছড়িয়ে পড়ার আগেই এই সমীক্ষাটি চালানো হয়েছিল। পূর্বের সংক্রমণ কিভাবে পরবর্তী বেশি সংক্রামক করোনাভাইরাসের ক্ষেত্রে সুরক্ষা প্রদান করবে সেটি এখনও অস্পষ্ট।

গবেষকেরা বলেন, যারা ইতিমধ্যে করোনা আক্রান্ত হয়ে আবার সুস্থ হয়েছেন তাদেরও করোনার টিকা নেওয়া উচিত। বিশেষ করে যাদের বয়স ৬৫ বছরের বেশি তাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে অবশ্যই করোনার টিকা নেওয়া জরুরি।

  •  
  •  
  •  
  •