করোনা সংক্রমণ রুখতে ৬ ফুটের সামাজিক দূরত্ব যথেষ্ট নয়- সি.ডি.সি

মোঃ এম,এন,আজিম;নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

করোনা ভাইরাস যেন দিনে দিনে ঘাতক হয়ে উঠছে।পাশাপাশি বদলাচ্ছে তার চরিএ। করোনা যে শুধু ড্রপলেটের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে তা নয়, এটি বায়ুবাহিতও বটে। কিছুদিন আগেই ল্যানসেটে প্রকাশিত একটি গবেষণাপত্র এমনটাই দাবি করেছিল । এবার সেই গবেষণাপত্রের দাবিকে সমর্থন করল মার্কিন সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন (সিডিসি)। পাশাপাশি তারা জানিয়ে দিল যে, সংক্রমণ থেকে বাঁচার জন্য নিরাপদ নয় ছ’ফুট সামাজিক দূরত্ব।

গত শুক্রবার একটি বিশেষ বিজ্ঞপ্তি জারি করে মার্কিন স্বাস্থ্য সংস্থাটি। পরিবর্তন আনা হয় কোভিডের তথাকথিত নিরাপত্তা বিধি ও গাইডলাইনে। সেখানেই সিডিসি স্পষ্ট করে দেয়, কোভিডের সংক্রমণ হচ্ছে এয়ারোসলের মাধ্যমে। ফলত, হাঁচি-কাশি ছাড়াও কেবলমাত্র আক্রান্তের নিঃশ্বাসের মাধ্যমেও বায়ুতে ছড়িয়ে পড়ছে এই ভাইরাস। ফলে ৬ ফুট সামাজিক দূরত্ব কার্যকর নয় এই ভাইরাসের ক্ষেত্রে।

তবে এখানেই শেষ নয়। করোনাভাইরাসের এই সংক্রামক চরিত্র আরও ভয়ানক হয়ে উঠতে পারে বদ্ধ পরিবেশে। সিডিসি বলছে, বায়ুপ্রবাহ না হলে ১ মিটারের বেশি দূরত্ব অতিক্রম করতে পারে না করোনাভাইরাসের কণাগুলি। বায়ুতে বদ্ধ হয়ে থেকে যায় তারা। ফলত, কোনো ঘর থেকে সংক্রমিত ব্যক্তির বেরিয়ে যাওয়ার পরেও ঝুঁকি থেকে যায় সংক্রমণের। আর এই কারণেই জনাকীর্ণ জায়গায় স্বাভাবিকের থেকে খানিকটা বেশিই থাকে সংক্রমণের মাত্রা। তার থেকেও এই প্রবণতা বেশি যেকোনো পরিবারের মধ্যে।

সামাজিক দূরত্বের পাশাপাশি ব্যক্তিগত দূরত্বকেও প্রাধান্য দিতে পরামর্শ দিচ্ছেন মার্কিন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা। বলছেন বাড়ির মধ্যেও মাস্ক এবং দূরত্ববিধি বজায় রাখার জন্য। সেইসঙ্গে নজর রাখতে বলছেন বাড়ির ভেন্টিলেশন ব্যবস্থাতেও।

সূএঃ এনবিসি নিউজ

  •  
  •  
  •  
  •  
ad0.3