ছোট গোল মরিচে বড় উপকার

কৃষি ডেস্ক:
খাবারের স্বাদ বাড়াতে গোল মরিচের তুলনা নেই। অমলেট, পাস্তা, সবজি ইত্যাদি খাবারের সঙ্গে গোল মরিচের ব্যবহার জনপ্রিয়। কেউ কেউ আবার ব্ল্যাক কফিতে সামান্য গোল মরিচ গুড়া মিশিয়ে দিন শুরু করেন। কারণ, স্বাদ ছাড়াও এর রয়েছে অসাধারণ পুষ্টিগুণ।

গোল মরিচ গাছের আদি উৎস দক্ষিণ ভারত। পৃথিবীর উষ্ণ ও নিরক্ষীয় এলাকায় এটির চাষ হয়ে থাকে। গোল মরিচ ফলটি গোলাকার, ৫ মিলিমিটার ব্যাসের, এবং পাকা অবস্থায় গাঢ় লাল বর্ণের হয়ে থাকে। এর মধ্যে ১টি মাত্র বিচি থাকে।

গবেষণায় জানা গেছে, গোল মরিচে পাইপারিন (piperine) নামের রাসায়নিক উপাদান রয়েছে, যা থেকে এর ঝাঁঝালো স্বাদটি এসেছে। গোল মরিচে রয়েছে অনেক স্বাস্থ্য উপকারিতা। হজমের সমস্যা হলে কোন খাবারই শরীরের কাজে লাগে না। আর গোল মরিচে প্রচুর পরিমাণ হাইড্রোক্লোরিক এসিড আছে যা পাকস্থলীর প্রোটিনের অংশ ভেঙে ফেলার মাধ্যমে হজম প্রক্রিয়াকে স্বাভাবিক রাখে।

গোল মরিচ একটি লতাজাতীয় উদ্ভিদ। এর ইংরেজি নাম Black pepper যার ফলকে শুকিয়ে মসলা হিসাবে ব্যবহার করা হয়। গোল মরিচে আছে উপকারী অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট। যা জীবানু ধ্বংস করে। অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট অন্ত্রনালীকে সুস্থ রাখতেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

আর্য়ুবেদ মতে, গোল মরিচ কফ ও বায়ুনাশক, রুচি বৃদ্ধি করে, কৃমি নাশ করে। পানিতে এর গুঁড়ো মিশিয়ে খেলে আমাশয়ে উপকার হয়।

গোল মরিচ ক্ষুধামন্দা দূর করে। গ্যাসট্রিকের সমস্যা দূর করে এবং ওজন কমাতে সাহায্য করে। হতাশা কমানোর পাশাপাশি ক্যান্সারের বিরুদ্ধেও লড়াই করে এই মরিচ। গরম দুধে গোল মরিচ আর চিনি মিশিয়ে খেলে সর্দিকাশি সারে। গোল মরিচ হজমে, জ্বরে, পেটে গ্যাস দূর করতেও উপকারী।

গবেষকদের মতে, মরিচের ঝাল খাওয়ার সময় মানব মস্তিষ্কে সেরোটনিন উৎপন্ন হয়। এ হরমোনটি মন ভালো থাকার সময় আমাদের মস্তিষ্কে নিঃসরণ হয়। বিষন্নতা দূর করতেও ভালো কাজ করে গোল মরিচের ঝাল।

গোল মরিচের আরেকটি উপকারী দিক হল, এটি দাঁত এবং মাড়ির সুস্বাস্থ্য নিশ্চিত করে। তাই সুস্থ থাকতে প্রতিদিনের খাবারে রাখুন পর্যাপ্ত পরিমাণ গোল মরিচ।

Comments

comments