বাকৃবিতে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ ২০১৭ পালিত

মো. আরিফুল ইসলাম, বাকৃবি থেকেঃ

দেশ খাদ্য নিরাপত্তা অর্জনের দ্বার প্রান্তে পৌঁছলেও পুষ্টি নিরাপত্তা অর্জন এখনও বড় চ্যালেঞ্জ। আর এ চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় দেশের মৎস্য সেক্টর গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। গত কয়েক দশকে অভাবনীয় সাফল্য অর্জিত হয়েছে। বর্তমানে দেশের প্রাণিজ আমিষের ৬০ শতাংশ আসে মাছ থেকে। মৎস্য সপ্তাহ পালনের মাধ্যমে দেশের মানুষকে মৎস্যসম্পদ উন্নয়নে আগ্রহী ও সচেতন করে তুলতে ভূমিকা রাখবে। দেশের মৎস্য সম্পদকে আরো সমৃদ্ধশালী করতে মৎস্য বিজ্ঞানী, গবেষক, খামারি ও সংশ্লিষ্ট সবাইকে আরো গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে হবে। এখন অপ্রচলিত মৎস্য সম্পদ যেমন কুঁচিয়া, কাঁকড়া নিয়ে কাজ করতে হবে। অর্জিত বিশাল সমুদ্রের সামুদ্রিক সম্পদের সঠিক ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে। উন্নত ও টেকসই প্রযুক্তি ভিত্তিক মাছ চাষ করতে হবে। জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ ২০১৭ উদযাপন উপলক্ষে গতকাল সোমবার বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বাকৃবি) এসব অভিমত ব্যক্ত করেন দেশের মৎস্যজ্ঞিানীরা। দিবসটি উপলক্ষে বাকৃবি মাৎস্যবিজ্ঞান অনুষদ বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা, মাছের পোনা অবমুক্তকরণ ও আলোচনা সভার আয়োজন করে।

জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে সকাল ১১টার দিকে এক বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করে বিশ্ববিদ্যালয়ের মাৎস্যবিজ্ঞান অনুষদ। শোভাযাত্রাটি অনুষদ ভবন থেকে শুরু হয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে বিশ্ববিদ্যলয়ের পাশ দিয়ে বয়ে চলা পুরাতন ব্রহ্মপুত্র নদের তীরে গিয়ে শেষ হয়। পরে নদে বিভিন্ন প্রজাতির মাছের পোনা অবমুক্ত করা হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মো. আলী আকবর শোভাযাত্রা শুভ উদ্বোধন ও মাছের পোনা অবমুক্ত করেন। পোনা অবমুক্তকরণ শেষে মাৎস্যবিজ্ঞান অনুষদীয় সম্মেলন কক্ষে দেশের মৎস্য সেক্টরের বর্তমান সমস্যা ও সম্ভাবনা বিষয়ক মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়। অনুষদীয় ডিন প্রফেসর ড. সুভাষ চন্দ্র চক্রবর্তীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয় ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মো. আলী আকবর। এছাড়া, অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মো. জসিমউদ্দিন খান, ছাত্র বিষয়ক উপদেষ্টা ড. সচ্চিদানন্দ দাস চৌধুরী, বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক ড. ইয়াহিয়া মাহমুদ, অনুষদের বিভিন্ন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান, শিক্ষক-শিক্ষার্থী, হ্যাচারি মালিক ও মৎস্য চাষিরা।

Comments

comments