২৫ বছরেও কোন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পাননি শাহরুখ খান!

বিনোদন ডেস্ক:
বাংলাদেশে বর্তমান আলোচিত বিষয় জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার। দুইদিন আগে দেশের সেরা তারকাদের সম্মানিত করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দেশের তারকাদের নিয়ে ভক্ত দর্শকদের যেমন কৌতূহল থাকে, তেমনি করে পিছিয়ে নন বলিউড হলিউড তারকারাও। কোন তারকা কবে সেরাদের পুরস্কার বগলদাবা করেছেন, তা জানতে উৎসুক সকলেই।

পাঠক একটা ব্যাপার হয়ত খেয়াল করেছেন, দীর্ঘ ২৫ বছর ধরে বলিউডে রাজত্ব করছেন শাহরুখ খান। তাকে বলা হয় ‘বলিউড বাদশাহ’। কিং অব রোমান্স বলতে বুঝায় শাহরুখের নাম। ১৯৮০ এর শেষের দিকে বেশ কিছু টেলিভিশন সিরিয়ালে অভিনয়ের মাধ্যমে তার অভিনয় জীবন শুরু করেন। ১৯৯২ সালে তার অভিনীত প্রথম চলচ্চিত্র ‘দিওয়ানা’ মুক্তি পায়। এরপর তিনি অসংখ্য বাণিজ্যিকভাবে সফল চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন এবং খ্যাতি অর্জন করেন। শাহরুখ খান ১৪ বার ফিল্মফেয়ার পুরস্কার লাভ করেন। এর মধ্যে আটটিই সেরা অভিনেতার পুরস্কার। কিন্তু জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার তার এখনও অধরা। কেন এই অপ্রাপ্তি? তিনি কি সেরাদের সেরা নন? এই নিয়ে প্রশ্ন রয়েই গেছে শাহরুখ অনুরাগীদের মনে।

কি করেননি শাহরুখ খান বলিউডের জন্য? বলিউড খানদের ভেতরে অন্যতম এই কিং খান চলচ্চিত্রে নামার পর থেকে আজও রুপালি পর্দা কাঁপিয়ে যাচ্ছেন। দর্শকদের চাহিদাকে পূরণ করে মনোরঞ্জন করেছেন শতভাগ। সেই সঙ্গে উপহার দিয়েছেন ভালো মানের অনেক কাজও। আর ব্যবসাসফলতা তো শাহরুখের নামের সঙ্গে জড়িয়ে আছেই। কথায় বলে শাহরুখ খানের নামটাই কোন একটা ছবির হিট হওয়ার পক্ষে যথেষ্ট। কিন্তু অবাক করা ব্যাপার হল এত এত সফলতা পেলেও এ তারকা এখনো জাতীয় পুরস্কারের নাগাল পাননি। প্রায় ২০০ টির বেশি পুরস্কারকে নিজের করে নেওয়া এই তারকার এখনো জাতীয় পুরস্কার পাওয়ার স্বপ্নটা অধরা থেকে গেছে।

হলিউডের লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিও হতে পারে এর চমৎকার উদাহরণ। ‘টাইটানিক’ যে বছর মুক্তি পায়, সেবার সেরা অভিনেতা ছাড়া সব পুরস্কার ঘরে তোলে ছবির নির্মাতা ও কলাকুশলীরা। দীর্ঘদিন সেরা কাজটা উপহার দিয়েছেন তিনি। কিন্তু পান নি অস্কারের সম্মাননা। গতবছর ‘দ্য রেভেন্যান্ট’ ছবিতে অভিনয় করে সেই সম্মান অর্জন করে নিলেন ডিক্যাপ্রিও। কিন্তু পাশের দেশের শাহরুখ খান প্রতিটি সিনেমায় নিজেকে ভেঙে নতুন করে গড়ে দারুণ অভিনয় উপহার দিয়েও পাননি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে সেরা অভনেতার সম্মান।

গতবছর ‘ফ্যান’ ছবিতে অভিনয় করতে নিজেকে ২৫ বছরের যুবকে পরিণত করেছিলেন শাহরুখ। কিন্তু দর্শকদের মনে জায়গা করে নিতে পারেননি তিনি। এরপর ‘দিলওয়ালে’, ‘রইস’, ‘ডিয়ার জিন্দেগি’তে সেরা অভিনয়টাই দিয়েছিলেন এই বলিউড তারকা। কিন্তু সাফল্য তার দরজায় কড়া নাড়লেও কড়া নাড়েনি দেশের সেরা পুরস্কারের আমন্ত্রণ।

এদিকে বলিউডের শেষ সারিতে থাকা ‘খান’দের মধ্যে পিছিয়ে থাকা সাইফ আলি খান জয় করেছেন সেরা অভিনেতার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারের সম্মান ‘হাম তুম’ ছবির কল্যাণে। কিন্তু ‘আনজাম’, ‘করণ অর্জুন’, ‘ডর’ সহ অসংখ্য ছবিতে নায়ক থেকে খলনায়কের ভূমিকায় অভিনয় করেও পিছিয়ে রয়েছেন বলিউডের কিং খান। যেখানে অন্যান্য দেশে বিরাট সম্মানের অধিকারী হয়ে বসে আছেন শাহরুখ। হিন্দি চলচ্চিত্রে অসাধারণ অবদানের জন্য ২০০৫ সালে ভারত সরকার শাহরুখ খানকে পদ্মশ্রী পুরস্কারে ভূষিত করে। কিন্তু জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে কেন এই বৈষম্যতা, এই প্রশ্ন ভক্তদের মনে রয়ে যাবে হয়ত আজীবন।

Comments

comments