রাবির ভর্তি পরীক্ষায় থাকবে ভ্রাম্যমাণ আদালত

রাবি প্রতিনিধিঃ

আগামী ২২-২৬ অক্টোবর পর্যন্ত রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ২০১৭-১৮ স্নাতক প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াতি চক্রকে তাৎক্ষণিক শাস্তি প্রদানের জন্য থাকছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

এছাড়া ক্যাম্পাসে বিশৃঙ্খলা এড়াতে কোন ধরনের স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের বুথ বসানোর অনুমতি দেয়া হবে না বলে জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর প্রফেসর ড. লুৎফর রহমান।

সোমবার দুপুরে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে তিনি বলেন, ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াতি রোধে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। জালিয়াতি চক্রের সাথে জড়িতদের তাৎক্ষণিক কঠিন শাস্তি প্রদানের জন্য থাকবে ভ্রাম্যমাণ আদালত। এছাড়া বিগত ভর্তি পরীক্ষার সময় একটি করে পুলিশ কন্ট্রোলরুম থাকলেও, এবার তিনটি কন্ট্রোলরুম করা হচ্ছে। একটি সিনেট ভবনের সামনে, অন্যদুটি বিনোদপুর ও কাজলা গেটে।

ভর্তি পরীক্ষার সময় বুথ বসানো অনুমতি থাকবে কিনা জানতে চাইলে প্রক্টর আরো বলেন, আমরা ক্যাম্পাসে বিশৃঙ্খলা এড়াতে কোনো ধরনের সংগঠনকে বুথের অনুমতি দিইনি বা দেবো না। আর অনুমতি ছাড়া কোনো ব্যক্তি বা স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন বুথ বসালে, নিরাপত্তা বা চলাচলের কোনো বিঘ্ন ঘটালে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেয়া হবে। তবে ভর্তিচ্ছুদের সহযোগিতার জন্য প্রশাসনের পক্ষ থেকে থাকবে হেল্প ডেস্ক।

এদিকে বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন, রাবি সংসদ ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়তি বন্ধে কঠোর ব্যবস্থাসহ ৬ দফা দাবি নিয়ে সোমবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয় ভিসি বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছে। দাবিগুলোর মধ্যে ছিল, ভর্তি পরীক্ষার্থী ও অভিভাবকদের আবাসন ব্যবস্থা, হয়রানি রোধ, খাবারের মান নিয়ন্ত্রণ রাখাসহ অন্যান্য।

প্রসঙ্গত, ২০১৭-২০১৮ স্নাতক প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষায় ৪ হাজার ৬ শত ৩২ টি (কোটাসহ) আসনের বিপরীতে ৩ লাখ ১৬ হাজার ১ শত ২০ জন শিক্ষার্থী লড়বে।

 

Comments

comments