ফের বিশ্বের সবচেয়ে ধনী জেফ বেজোস

নিউজ ডেস্কঃ

এ বছর দ্বিতীয়বারের মতো বিশ্বের সবচেয়ে ধনী ব্যক্তির খেতাব অর্জন করলেন অ্যামাজনের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী জেফ বেজোস। শুক্রবার (২৭ অক্টোবর) পুঁজিবাজারে অ্যামাজনের শেয়ার মূল্য ১৩ শতাংশ বৃদ্ধিতে তার মোট সম্পত্তির পরিমাণ ছাড়িয়ে যায় বিল গেটসের সম্পত্তির পরিমাণকে।

যুক্তরাষ্ট্রের ব্যবসায়ভিত্তিক প্রখ্যাত সাময়িকী ফোর্বস জানায়, শুক্রবার পুঁজিবাজারে অ্যামাজনের শেয়ার মূল্য ৮ শতাংশ বৃদ্ধির মধ্য দিয়ে দিন শুরু করে। এ বৃদ্ধি জেফ বেজোসের মোট সম্পত্তিতে যোগ করে আরও ৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। কিন্তু তা ফোর্বসের বর্তমান শীর্ষ ধনী বিল গেটসকে পেছনে ফেলার জন্য যথেষ্ট ছিল না। মাইক্রোসফট সহ-প্রতিষ্ঠাতার মোট সম্পত্তির পরিমাণ ৯০ দশমিক ১ বিলিয়ন মার্কিন ডলার, যা জেফ বেজোসের চেয়ে সাড়ে পাঁচশ মিলিয়ন ডলার বেশি।

কার্যদিবস শুরুর প্রথমার্ধেই অ্যামাজনের শেয়ার আরও দুই শতাংশ বৃদ্ধিতে নয়শ’ মিলিয়ন মার্কিন ডলার যোগ হয় বেজোসের অ্যাকাউন্টে, আর তাতে তিনি বনে যান বিশ্বের সবচেয়ে ধনী ব্যক্তি। দিন শেষে বেজোসের মোট সম্পত্তির পরিমাণ গিয়ে দাঁড়ায় ৯৩ দশমিক ১ বিলিয়ন মার্কিন ডলার, যা বিল গেটসের চেয়ে প্রায় ৩ বিলিয়ন ডলার বেশি। একদিনেই বেজোসের আয় ছিল ১০ বিলিয়ন ডলারেরও বেশি।

ফোর্বস জানায়, শুক্রবার পুঁজিবাজারে বিপুল অংকের মুনাফা অর্জন করে অ্যামাজন। বিশ্লেষকরা মনে করছেন, এদিন অ্যামাজনের অর্জিত মুনাফার পরিমাণ ৪২ দশমিক ১ বিলিয়ন ডলার।

তিন মাস আগে জেফ বেজোস প্রথমবারের মতো বিশ্বের সবচেয়ে ধনী ব্যক্তির আসনে বসেছিলেন। কিন্তু তার শীর্ষ অবস্থান মাত্র কয়েক ঘণ্টার জন্য স্থায়ী হয়েছিল। ২৭ জুলাই অ্যামাজনের শেয়ার মূল্য বৃদ্ধিতে তার মোট সম্পত্তির পরিমাণ ছাড়িয়ে গিয়েছিল বিল গেটসকে। একই দিনে আবার দরপতনে বেজোসকে ফিরে আসতে হয়েছিল দ্বিতীয় অবস্থানে।

একদিনে অনেক বেশি মুনাফা বাগালেও, পুঁজিবাজারে অ্যামাজনের শেয়ার মূল্য অনেকটা স্থিতিশীল থাকবে বলে মনে করা হচ্ছে। সুতরাং, এবার বেজোসের শীর্ষ ধনী খেতাব বেশ নিরাপদ, যদি না এ বিষয়ে মাইক্রোসফট সহ-প্রতিষ্ঠাতা নতুন কোনো পরিকল্পনা নেন।

১৯৯৮ সালে অ্যামাজন পুঁজিবাজারে প্রবেশের পর ফোর্বসের বিবেচনায় শীর্ষ চারশ’ ধনী আমেরিকানের তালিকায় জেফ বেজোসের নাম প্রথম দেখতে পাওয়া যায়। তখন তার মোট সম্পত্তি ছিল এক দশমিক ছয় বিলিয়ন ডলার।

Comments

comments