গুগলের দুটি পুরস্কার পেল বাংলাদেশ

নিউজ ডেস্কঃ

গুগল লোকাল গাইড সামিটে দুটি পুরস্কার অর্জন করেছে বাংলাদেশ। যুক্তরাষ্ট্রের ক্যার্লিফোনিয়ায় গত ১০-১২ অক্টোবর গুগল লোকাল গাইড সামিট অনুষ্ঠিত হয়। এবারের সামিটে ৬২টি দেশের মধ্যে ১৬টি পুরস্কার বিতরণ করা হয়। এর মধ্যে বাংলাদেশ একমাত্র দেশ যারা একসঙ্গে দুটি পুরস্কার পেয়েছে।

সামিটের শেষ দিন ১২ অক্টোবর রাতে পুরস্কার ঘোষণা করা। বাংলাদেশের পক্ষে পুরস্কার গ্রহণ করেন বাংলাদেশ লোকাল গাইডের মডারেটর মাহাবুব হাসান এবং বেস্ট স্যুভিনিয়র অ্যাওয়ার্ড গ্রহণ করেন সোনিয়া বিনতে খোরশেদ।

মাহাবুব হাসান বলেন, পুরস্কারপ্রাপ্তির অনুভূতি ভাষায় প্রকাশ করার মতো নয়। আমরা যেহেতু গুগল ম্যাপে দেশের পর্যটনকে বেশি ফোকাস করি তাই এ পুরস্কারপ্রাপ্তির মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের পর্যটন শিল্প আরো এক ধাপ এগিয়ে যাবে বলে আশা করছি। পুরস্কার ঘোষণার মঞ্চে যখন দুইবার বাংলাদেশের নাম ঘোষণা করা হয় তখন সবাই উন্মুখ হয়ে তাকিয়ে ছিল আমাদের দিকে।

মাহাবুব হাসান আরো বলেন, সামিটে একটা পর্ব ছিল বিভিন্ন দেশের অংশগ্রহণকারীদের নিজ দেশের ঐতিহ্যবাহী কোনো খাবার বা পণ্য বিনিময় করা। আমরা নকশি পিঠা সবাইকে দিয়েছিলাম। এটি হাতে তৈরি পিঠা শুনে সবাই অবাক হয়েছিলেন এবং ব্যাপক প্রশংসা করেন।

তিন দিনব্যাপী এ সামিটে ছিল সামাজিক ও তথ্যপ্রযুক্তির বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে সেমিনার এবং গুগল ম্যাপভিত্তিক সমাজ সেবা বাড়ানোর কৌশল নিয়ে আলোচনা। এবারের সামিটের আলোচনার মূল বিষয়বস্তু ছিল আক্সেসেবিলিটিস, ফিজিক্যাল ডিজেবিলিটিস, ইমেজ প্রসেসিং, আর্টিফিশিয়াল ইন্টিলিজেন্ট ও ইউজার জেনারেটেড কন্টেন্ট।

সামিটে উদ্বোধনী বক্তব্য রাখেন গুগল ম্যাপের ভাইস প্রেসিডেন্ট লুইস আন্দ্রে বেরোস। এছাড়া আরো উপস্থিত ছিলেন গুগলের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা। সামিটে গুগলের কিছু প্রজেক্ট দেখানো হয় যা আগামী বছর সবার জন্য উন্মুক্ত করা হবে।

উল্লেখ্য, লোকাল গাইড হচ্ছে গুগলের ম্যাপভিত্তিক এক পরিসেবা। যার মাধ্যমে আপনি ম্যাপের বিভিন্ন স্থানের বিবরণ ও অন্যান্য সুবিধাগুলো তুলে ধরতে পারবেন। যেমন, কোন রেস্টুরেন্টের খাবারের মান কেমন, ওই রেস্টুরেন্টে হুইল চেয়ার প্রবেশ করতে পারে কি না, হুইল চেয়ার ব্যবহার উপযোগী টেবিল আছে কি না ইত্যাদি। এ ছাড়া এই ফোরামের মাধ্যমে নিজ নিজ দেশের ঐতিহ্য ও প্রযুক্তি সম্পর্কিত সমস্যাগুলো সবার সামনে তুলে ধরা যায়। পরে গুগল সেগুলো সমাধানের চেষ্টা করে থাকে।

আমাদের দেশে ২০১৩ সাল থেকে বাংলাদেশ লোকাল গাইড কাজ করে যাচ্ছে।

Comments

comments