ধ্বংসের পথে পৃথিবী, বিকল্প গ্রহের কথা বলছেন হকিং

নিউজ ডেস্কঃ

কিছু দিনের মধ্যেই এই পৃথিবীর বাইরে কোথাও বিকল্প বাসযোগ্য স্থান গড়তে না পারলে মানুষ ধ্বংস হয়ে যাবে বলে ফের শঙ্কা প্রকাশ করছেন ব্রিটিশ পদার্থবিদ স্টিফেন হকিং। আর ধ্বংসের কারণ হিসেবে তিনি চিহ্নিত করলেন, যন্ত্রের কৃত্রিম বুদ্ধি তথা আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্সকে (এআই)। রোববার ভারতীয় গণমাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকার এক প্রতিবেদনে এমন কথা জানানো হয়।

খবরে বলা হয়, এই ক্ষেত্রটিতে উন্নতি হচ্ছে দ্রুত। পরিবেশ-পরিস্থিতি বিশ্লেষণ করে কম্পিউটারই সিদ্ধান্ত নিতে ও কাজ করতে শিখছে। এই উন্নতির বিরোধী নন হকিং। গত বছরও ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের এআই বিভাগে গিয়ে তিনি বলেছিলেন, ‘কৃত্রিম বুদ্ধি সৃষ্টির লাভ বিপুল। আমাদের ভাবনা-চিন্তাকে এআই দিয়ে যখন বহুগুণ বাড়িয়ে তোলা যাবে, কল্পনাও করতে পারি না, কোথায় গিয়ে পৌঁছব আমরা। হয় এটা মানুষের সেরা উদ্ভাবন, নয়তো সব চেয়ে খারাপ।’
খারাপ দিক নিয়ে তিনি মনে করিয়ে দিয়েছেন, ‘মানুষই তৈরি করছে কম্পিউটার ভাইরাস। যা ছড়িয়ে পড়ছে, কব্জা করছে অন্যের কম্পিউটার বা নেটওয়ার্ক।’ হকিংয়ের সন্দেহ, ‘কিছু দিনের মধ্যেই কেউ না কেউ সাইবার দুনিয়াকে এমন মাত্রায় পৌঁছে দেবেন, যেখানে কৃত্রিম বুদ্ধির জোরেই যন্ত্র নিজের প্রতিরূপ তৈরি করতে শুরু করবে। এখনই নানা ক্ষেত্রে এই এআই এর যে রকম ঢালাও ব্যবহার হচ্ছে, সেদিন আর দূরে নেই যখন, দাপটে মানুষকেও ছাপিয়ে যাবে ওই যন্ত্ররা। সে হবে জীবনের এক নতুন রূপ।
হকিং বলছেন, ‘আমরা এমন জায়গায় পৌঁছে গেছি, যেখান থেকে ফিরে আসার আর পথ নেই। বিপজ্জনকভাবে বাড়ছে জনসংখ্যা। পৃথিবী আমাদের পক্ষে বড্ড ছোট হয়ে পড়ছে। নিজেদের ধ্বংস করার দিকে এগিয়ে চলেছি আমরা। অবিলম্বে বাসযোগ্য অন্য কোনও গ্রহ খুঁজে বার করতেই হবে।’

Comments

comments