মাতৃত্বকালীন ভাতার মেয়াদ ৪ বছর করবে সরকার

নিউজ ডেস্কঃ

মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি বলেছেন, গবেষণায় দেখা গেছে শূন্য থেকে চার বছরের মধ্যে শিশুর ৮০ শতাংশ শারীরিক ও মানসিক বিকাশ সাধিত হয়। এ সময় মা যদি পুষ্টিকর খাবার না খায় তাহলে শিশু অপুষ্টিতে ভোগে এবং তার শারীরিক ও মানসিক বিকাশ সাধিত হয় না।

এই সমস্যা সমাধানে সরকার বর্তমানে বাংলাদেশের প্রায় ৮ লাখ দরিদ্র মাকে প্রতি মাসে ৫০০ টাকা করে ২ বছর ভাতা প্রদান করে।

তিনি বলেন, এই ভাতা প্রদানের উদ্দেশ্যে হলো শূন্য থেকে ২ বছর মেয়াদে শিশুর বিকাশে সহযোগিতা করা। কিন্তু দুই বছর পরে এই ভাতা বন্ধ করে দিলে শিশুর বিকাশ বাধাগ্রস্ত হতে পারে তাই সরকার ভাতা প্রদানের মেয়াদ ৪ বছর করার চিন্তা-ভাবনা করছে।

বুধবার রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আয়োজনে সামাজিক নিরাপত্তা স্ট্রাটিজি বাস্তবায়নে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের করণীয় বিষয়ক সেমিনারে তিনি এসব কথা বলেন।

মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মিজানুর রহমানের সভাপতিত্বে সেমিনারে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ওয়ার্ল্ড ফুড প্রোগ্রাম বাংলাদেশের প্রতিনিধি ক্রিসটা রেডার, মহিলা বিষয়ক অধিদফতরের মহাপরিচালক কাজী রওশন আক্তার, কেবিনেট ডিভিশনের অতিরিক্ত সচিব এ কে এম মহিউদ্দিন আহমেদ, মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মাহমুদা শারমিন বেনু, মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব নাছিমা বেগম এনডিসি সহ-সরকারি ও বেসরকারি সংস্থার প্রতিনিধিরা।

নাছিমা বেগম এনডিসি বলেন, দেশের উন্নয়নকে ত্বরান্বিত করতে অর্থনৈতিক কার্যক্রমে নারীর অংশগ্রহণ বাড়াতে হবে এবং সবাইকে নিয়ে কাজ করতে হবে। সেমিনারে সমিাজিক নিরাপত্তা প্রোগ্রামে উপকারভোগী সিলেকশনে অনিয়ম দূর করাসহ মাতৃত্বকালীন ভাতা কিভাবে আরও সঠিকভাবে প্রদান করা যায় সে বিষয়ে আলোচনা হয়।

Comments

comments