ব্যবহৃত টি-ব্যাগের নানাবিধ ব্যবহার

লাইফস্টাইল ডেস্ক:
মাছ ভাতের মতো চা এখন বাঙালির খাবার তালিকায় ঢুকে গিয়েছে। সকালে ঘুম থেকে উঠে এবং রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগ পর্যন্ত আমাদের সঙ্গী থাকে এক কাপ চা। আপনার ঘরে টি-ব্যাগের প্রয়োজনটাও তাই কখনো ফুরিয়ে যাবার নয়। তবে আরেকটা ব্যাপার জেনে আপনি কিছুটা অবাকই হবেন। জানেন টি-ব্যাগ শুধু চা তৈরিতে নয় আরো নানাবিধ কারণে আপনার কাজে আসতে পারে। তাই কখনোই ব্যবহৃত টি ব্যাগ ফেলে দিবেন না। ব্যবহৃত টি ব্যাগ কিভাবে কাজে লাগাবেন জেনে নিন। চলুন বিস্তারিত দেখে নেওয়া যাক……

রান্নার কাজে:
আচ্ছা ভাত রান্না করবেন? যে পাত্রে ভাত রান্না করবেন তাতে একটি টি ব্যাগ রেখে দিন। দেখবেন রান্না করা ভাতে আলাদা একটা ফ্লেভার পাবেন। এছাড়াও চাইনিজ অথবা থাই খাবার তৈরী করার সময় একটা পুদিনা পাতার টি ব্যাগ পাত্রের এক পাশে রাখুন। অন্য ধরনের সুঘ্রাণ পাবেন।

তৈজসপত্রের দুর্গন্ধ দুর করতে:
ডাস্টবিনে গন্ধ হওয়াটা খুবই স্বাভাবিক একটা ব্যাপার। এ গন্ধ দুর করতে ডাস্টবিনে একটা মিন্ট ফ্লেভারের টি-ব্যাগ ফেলে রাখুন। রেফ্রিজারেটরের গন্ধ দুর করতেও ব্যবহৃত টি ব্যাগ ফ্রিজের এক কোণায় রেখে দিন। পুরাতন বইয়ের পাতায় এক ধরনের ভ্যাপসা গন্ধ থাকে। যে তাকে বই রাখেন সেখানেও চাইলে একটা টি ব্যাগ রেখে দিন খুব কাজে দেবে।

বাসন পরিষ্কার করতে:
ঘরোয়া হালকা গরম পানিতে সব বাসন ভিজিয়ে রাখুন সারারাত। সাথে ছেড়ে দিন চার-পাঁচটা ব্যবহৃত টি ব্যাগ। দেখবেন দাগ অথবা লেগে থাকা খাবার বাসন থেকে খুব সহজেই উঠে যাবে। আর আপনার কাজ সহজ হয়ে যাবে।

কাপড়ের উজ্জলতা ফেরাতে:
দীর্ঘদিনের ব্যবহৃত রঙিন কাপড় কি উজ্জলতা হারাচ্ছে? অথবা কাপড়ে কোনো জেদি দাগ লেগেছে যা, উঠার নাম নিচ্ছেই না! চিন্তা করবেন না। গরম পানিতে কয়েকটা টি ব্যাগ ছেড়ে দিন। এবার এই পানিতে আপনার কাপড়গুলো ভিজিয়ে রাখুন। যত বেশি ভিজিয়ে রাখবেন তত ভালো। এবার দেখুনতে কাপড়ের হারানো উজ্জলতা ফিরে এসেছে সাথে দাগও গায়েব।

এয়ার ফ্রেশনার হিসেবে ব্যবহার:
ভাবছেন নিশ্চয় টি-ব্যাগ কেমন করে এয়ার ফ্রেশনারের কাজ করবে! একদম তাই। অবাক হওয়ার কিছু নেই। আপনার প্রিয় গাড়ির দমবন্ধ হয়ে যাওয়ার মতো গন্ধ ব্যবহৃত টি ব্যাগ নিমিষেই দুর করবে। কয়েকটি টি ব্যাগ একটি শুকনো কাপড়ে বেঁধে আপনার গাড়িতে রেখে দিন। নিজেই পরীক্ষা করে দেখুন না।গন্ধ আর আছে, নাকি নেই!

মাউথওয়াশ হিসেবে ব্যবহার:
পুদিনা পাতার চা পছন্দ করেন ? এটা কিন্তু শরীরের জন্য খুব উপকারী। এছাড়াও জানেন পুদিন পাতার চা আপনি মাউথওয়াশ হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন! গরম পানিতে পুদিনা পাতার টি-ব্যাগ ছেড়ে দিন। চা তৈরী! খেতে চাইলে খেয়ে নিন অথবা ঠান্ডা করে নিন। টি-ব্যাগ টা ফেলে দিন। কিন্তু চা টা দিয়ে কুলি করে নিন। এটা মাউথওয়াশের কাজ করবে।আর আপনাকে দিবে তরতাজা নিঃশ্বাস।

পা মোলায়েম করতে:
হালকা গরম পানিতে কয়েকটি টি-ব্যাগ ছেড়ে দিন। এবার এই পানিতে পা ১০ মিনিট ডুবিয়ে রাখুন। দশ মিনিট পর খেয়াল করে দেখুন পা অনেক বেশি কোমল মনে হবে। সাথে পা ফাটার সমস্যাও কমে যাবে অনেকটা।

পোকা তাড়াতে:
চাল, ডাল ,ময়দা, চিনি ইত্যাদিতে পোকার আক্রমণ ঘটলে এক কাজ করুন কয়েকটা টি -ব্যাগ চালের ড্রাম অথবা চিনির পাত্রে রেখে দিন। পোকা অথবা পিপঁড়া দুটোরই উৎপাত বন্ধ হবে।

ফার্নিচারের চমক ফেরাতে:
কোন প্রকার পলিশ ছাড়াই শুধুমাত্র টি-ব্যাগ দিয়েই আপনি এ চমক ফেরাতে পারবেন। খুবই সহজ কাজ। ঠাণ্ডা পানিতে টি ব্যাগ ভিজিয়ে রাখুন এবার এই পানি দিয়ে ফার্নিচারগুলো মুছে নিন। ব্যাস দেখুন কেমন চমকাচ্ছে কাঠের তৈরি ফার্নিচারগুলো।

সার হিসেবে ব্যবহার:
যেকোন ফুল অথবা ফলের গাছে টি ব্যাগ সার হিসেবে ব্যবহার করুন। কিছুই করতে হবেনা প্রতিটা গাছের টবে টি ব্যাগ ফেলে রাখুন। এবার গাছে পরিবর্তনগুলো চোখে পড়বে আপনারও।

ওভেনের যত্নে:
প্রতিবার ওভেন ব্যবহারের পর ওভেনের গ্লাস আর ভেতর টি-ব্যাগ ভেজানো পানি দিয়ে পরিষ্কার করুন। ভেতরের তেল চিটচিটে ভাব চলে যাবে।দুর্গন্ধও থাকবে না। চাইলে সব সময় ওভেনের ভেতর একটা টি ব্যাগ সবসময় রেখে দিন এতে ওভেনের ভেতর কখনোই ভ্যাপসা গন্ধ হবে না। টি-ব্যাগের কারণে ওভেনে পোকা মাকড়ও ঢুকবেনা।

হাতের দুর্গন্ধ দুর করতে:
রান্না করা পর হাতে হলুদের গন্ধ থেকে যায়। রসুনের গন্ধ তো সহজে যেতেই চায় না। বার বার হাত ধোয়ার আগে অন্তত একটা টি ব্যাগ হাতে ঘষে দেখুন। দুর্গন্ধ সাথে সাথে দুর হবে।

গাছের সেরা খাবার হিসেবে:
অবাক হবার কিছু নেই। টি-ব্যাগ গাছের সার হিসেবে যখন ব্যবহার করতে পারবেন তবে অবশ্যই পুরো বাগানটারও কাজে আসতে পারে টি-ব্যাগ। গাছে যে পানি দিবেন সে পাত্রে কয়েকটা টি-ব্যাগ ফেলে রাখুন। এ পানি গাছগুলোকে খুব দ্রুত বেড়ে উঠতে সাহায্য করবে এই পানি মাটির উর্বরতাও ধরে রাখবে।

সূত্র: ebela

Comments

comments