অস্ট্রেলিয়ায় স্বেচ্ছামৃত্যু অনুমোদন

নিউজ ডেস্কঃ

অস্ট্রেলিয়ার ভিক্টোরিয়া রাজ্যে প্রথমবারের মতো স্বেচ্ছায় মৃত্যুর বৈধতা দেয়া হয়েছে। আইনটি পাস করার ব্যাপারে একশ ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে বিতর্ক চলছিল। টানা দুই রাত বিতর্কের পর বুধবার বিলটি অনুমোদন দেয়া হয়।

তবে সবার ক্ষেত্রে এ আইন প্রযোজ্য হবে না। মুমূর্ষু রোগীরা আগামী বছরের মাঝামাঝি থেকে প্রাণনাশক ওষুধ ব্যবহারের জন্য আবেদন করতে পারবেন।

সে ক্ষেত্রেও বিধান রয়েছে। আবেদনকারীর বয়স কমপক্ষে ১৮ বছরের বেশি হতে। তাছাড়া চিকিৎসক যদি বলেন, তাদের বাঁচার সম্ভাবনা ছয় মাসের কম; কেবল সে ক্ষেত্রে আবেদন গ্রহণ করা হতে পারে।

এ ব্যাপারে রাজ্যের প্রধান ড্যানিয়েল অ্যান্ড্রুজ জানান, আমরা আমাদের সংসদ এবং রাজনৈতিক প্রক্রিয়ার মূলে সমবেদনার অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে পেরেছি বলে গর্ব হচ্ছে।

তিনি আরও জানান, একেই বলে সত্যিকারের রাজনীতি এবং এটাই সবচেয়ে উত্তম। আর ভিক্টোরিয়া রাজ্যে যেটা করা হয়, সেটা সবার মঙ্গলের কথা ভেবেই করা হয়।

মারাত্মক কষ্ট সহ্য করা রোগীদের কথা ভেবে আইনটি করা হয়েছে। তবে সে ক্ষেত্রে ৬৮টি শর্ত রয়েছে। তিনজন বিশেষ প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত চিকিৎসকের অনুমতি সাপেক্ষে কোনো রোগী আবেদন করতে পারবেন।

সবগুলো আবদেন পর্যালোচনা করে দেখবে বিশেষ একটি বোর্ড। তবে কোনো রোগীকে জোরপূর্বক মৃত্যুর দিকে ঠেলে দেয়া অপরাধ।

তবে অাবেদনের প্রথম শর্ত হল, রোগীকে অবশ্যই ভিক্টোরিয়া রাজ্যে অন্তত একবছর বাস করতে হবে। মানসিকভাবে সুস্থও হতে হবে তাকে।

অস্ট্রেলিয়ার উত্তরাঞ্চলে ১৯৫৫ সালে বিশ্বের প্রথম স্বেচ্ছায় যন্ত্রণাহীন মৃত্যু আইন চালু করা হয়েছিল। আট মাস পরেই ক্যানবেরার ফেডারেল কর্তৃপক্ষ আইনটি বিলুপ্ত করে দেয়।

Comments

comments