নারীদের মাঠে যেতে মানা, ইমামসহ তিনজন রিমান্ডে

নিউজ ডেস্কঃ

মসজিদের মাইকে ঘোষণা দিয়ে কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে নারীদের খেত-খামারে যাওয়ার ব্যাপারে ফতোয়া জারির ঘটনায় মামলা হয়েছে।

এ মামলায় ছয়জনকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। এর মধ্যে মসজিদের ইমামসহ তিনজনকে এক দিন করে রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ। বাকিদের জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

গতকাল মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১১টায় কুমারখালী থানার উপ-পরিদর্শক শেখ রাজিব আল রশিদ বাদী হয়ে মামলা করেন। মামলায় ১৯ জনের নাম উল্লেখ করা হয়েছে। এছাড়া অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে আরও ১০-১৫ জনকে।

অভিযানের দ্বিতীয় দিন বুধবার বিকেলে শিলাইদহ থেকে ওই বৈঠকে উপস্থিত থাকা আবুল হোসেন, আনিছুর রহমান ও দাউদ হোসেনকে পুলিশ গ্রেফতার করা হয়। এ নিয়ে ছয়জনকে গ্রেফতার করা হয়।

ফসলের ক্ষতি ও অসামাজিক কার্যকলাপের অজুহাতে কল্যাণপুর গ্রামের নারীদের মাঠে যাওয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। গত শুক্রবার মাইকে তা প্রচারের পর থেকে নারীরা ভয়ে আছেন।

কুমারখালী থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) বিপ্লব কান্তি সরদার বলেন, মঙ্গলবার রাতে কল্যাণপুর ও আশপাশের এলাকায় অভিযান চালিয়ে তিনজন ও বধুবার আরও তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়।

এদের মধ্যে এজাহারভুক্ত চারজন হলেন- কল্যাণপুর জামে মসজিদের পেশ ইমাম আবু মুছা (৩৬), মসজিদ কমিটির সভাপতি আলতাব হোসেন (৪০), সাধারণ সম্পাদক মতিয়ার রহমান (৩৮) ও আবুল। সন্দেহভাজন আসামিরা হলেন আনসার আলী (৫০) ও দাউদ শেখ (৩৮)।

বুধবার দুপুরে গ্রেফতার ছয়জনকে কুষ্টিয়া জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আদালতে (কুমারখালী আমলি আদালত) নেয়া হয়। রিমান্ডের আবেদন করা হলে আদালত আবু মুছা, আলতাব ও মতিয়ার রহমানের এক দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন। বাকি তিনজনকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে পুলিশ সুপার এস এম মেহেদী হাসান বলেন, ঘটনাটি সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে দেখা হচ্ছে। বাকি আসামিদের ধরতে সংশ্লিষ্ট থানার পুলিশ কর্মকর্তাদের জোর নির্দেশ দেয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।

Comments

comments