সাকিব-তামিমে জিম্বাবুয়েকে সহজেই হারালো টাইগাররা

স্পোর্টস ডেস্ক:
ত্রিদেশীয় সিরিজের উদ্বোধনী ম্যাচেই বড় জয় পেয়েছে শিরোপা প্রত্যাশী মাশরাফিবাহিনী। সোমবার মিরপুরে জিম্বাবুয়েকে ৮ উইকেটের বড় ব্যবধানে হারিয়েছে মাশরাফির টিম বাংলাদেশ। সহজ জয়ের লক্ষ্যে ব্যাটিংয়ে নেমে ২৮.৩ ওভারেই ১৭১ রান তুলে নেয় বাংলাদেশ।

উদ্বোধনী জুটিতে তামিম আর এনামুল হক বিজয়ের শুরুটা খারাপ হয়নি। ৪ ওভারে ৩০ রান তুলেন এ যুগল। এরপরই আঘাত সিকান্দার রাজার। চড়াও হয়ে খেলতে গিয়ে লেগ সাইডে তুলে মেরেছিলেন বিজয়। বাউন্ডারিতে দাঁড়িয়ে ক্যাচটি তালুবন্দি করতে ভুল করেননি শন আরভিন। ১৪ বলে গড়া ১৯ রানের ইনিংসে ৪টি বাউন্ডারি হাঁকিয়েছেন বিজয়।

এরপর তামিম ইকবালকে সঙ্গে নিয়ে ৭৮ রানের দারুণ এক জুটি গড়ে সিকান্দার রাজার বলে এলবিডব্লিউ হয়ে ফিরেছেন সাকিব। ৩৭ রানের ইনিংসটিতে তিনি বল মোকাবেলা করেছেন ৪৬টি, বাউন্ডারি ৫টি। বিজয়-সাকিব বিদায় নিলে ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ৩৯তম হাফসেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন ২৮ বছর বয়সী বাঁ-হাতি এই ওপেনার তামিম ইকবাল।

হাফসেঞ্চুরি ছাঁপিয়ে এখন সেঞ্চুরির পথে ছিলেন তামিম। কিন্তু জিম্বাবুয়ে কম রান করায় সেই সুযোগ থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন তামিম। তিনি ৯৩ বলে ৮ বাউন্ডারি ও এক ছক্কায় ৮৪ রান করে অপরাজিত থাকেন। এছাড়া সঙ্গে থাকা মুশফিকুর রহিম আপরাজিত ১৪ রানে।

এর আগে টসে হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে সাকিব-মুস্তাফিজ-রুবেল-মাশরাফিদের বোলিং তোপে ১৭০ রানে গুটিয়ে যায় জিম্বাবুয়ে। বল হাতে শুরুতেই জিম্বাবুয়ের শিবিরে জোড়া আঘাত হানেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। ওপেনার মিরেকে শূন্য রানে সাজঘরে ফেরেন সাকিব। লেগ স্টাম্পের বাইরের বলে গ্ল্যান্স করতে গিয়েছিলেন মিরে। বলে ব্যাট ছোঁয়াতে পারেননি। কিন্তু পা চলে আসে ক্রিজের বাইরে। উইকেট কিপার মুশফিক বল ধরে চোখের পলকে স্ট্যাম্পিং করেন। প্রথম উইকেটের রেশ না কাটতেই উইকেট আরও একটি। জিম্বাবুয়ের একাদশের একমাত্র বাঁহাতি ব্যাটসম্যান ক্রেইগ আরভিনকে বাঁহাতি স্পিনে ফেরান সাকিব আল হাসান। ওভারের তৃতীয় বলে মিড উইকেটে সাব্বিরের হাতে ক্যাচ দেন।

দলীয় ৩০ রানের মাথায় উইকেটে আঘাত হানেন অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। অফ স্টাম্পের বাইরে টানা বল করে হ্যামিল্টন মাসাকাদজাকে ফাঁদে ফেলেন মাশরাফি। উইকেটকিপার মুশফিকের হাতে কট বিহাইন্ড হয়ে ফিরে যান জিম্বাবুয়ের ওপেনার। ২৪ বলে ১৫ রান করে বিদায় নেন তিনি।

শেষ মুহুর্তে মুস্তাফিজ ও পেসার রুবেল হোসেন বল হাতে ভয়ঙ্কর হয়ে উঠেন। দলীয় ৫১ রানে পেসার মুস্তাফিজ ফেরান ব্রেন্ডন টেলরকে। ব্যাক্তিগত ২৪ রানে মুস্তাফিজের বলে মুশফিকের তালুবন্দি হন তিনি। ১৬.৪ ওভারে চার উইকেট হারায় দলটি। অবশ্য এরপর দলের বিপদে সিকেন্দার রাজা দারুণ লড়াইয়ের চেষ্টা করেন। তিনি দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৫২ রান করে মুস্তাফিজের বলে রানআউটের শিকার হন।

এছাড়া পিটার মুর ৩৩ ও ওয়েলার ১৩ ও ক্রেমার করেন ১২ রান। শেষ পর্যন্ত ৪৯ ওভারে ১৭০ রানে গুটিয়ে যায় তারা। বল হাতে সাকিব আল হাসান ১০ ওভারে ৪৩ রানে তিন উইকেট শিকার করেন। এছাড়া মুস্তাফিজ ও রুবেল নেন দুটি করে উইকেট। মাশরাফি ও সানজামুল নেন একটি করে উইকেট।

Comments

comments