আর্থিক ক্ষতি হচ্ছে সাকিব-মাশরাফিদের

স্পোর্টস ডেস্ক:

বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের আকাশচুম্বী জনপ্রিয়তার কারণে বিজ্ঞাপন নির্মাণে তাদের চাহিদাই এখন সবচেয়ে বেশি। খেলোয়াড়দের ইমেজকে কাজে লাগাতে মুখিয়ে থাকে কোম্পানিগুলো। সাকিব-মাশরাফিরাও বিভিন্ন কোম্পানির সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়ে কামিয়ে নিচ্ছেন কোটি কোটি টাকা।

তবে এবার বিপত্তি বেধেছে টেলিকম কোম্পানির বিজ্ঞাপন নিয়ে। বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন জানিয়েছেন বিসিবির টিম স্পন্সর ‘রবি’ ছাড়া অন্য কোনো টেলিকম কোম্পানির বিজ্ঞাপন করতে পারবেন না কেন্দ্রীয় চুক্তিবদ্ধ ক্রিকেটাররা।

এর আগে ২০১৭ সালের জুনে প্রায় ৬০ কোটি টাকায় বিসিবির টিম স্পন্সর স্বত্ব কিনে নেয় মোবাইল কোম্পানি ‘রবি’। তাদের শর্তই ছিল রবির বিজ্ঞাপানের বাইরে অন্য কোনো টেলিকম কোম্পানির প্রচারে অংশ নিতে পারবেন না ক্রিকেটাররা। এতদিন এ নিয়ে সক্রিয় না থাকলেও সম্প্রতি এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছে দেশের ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিসিবি। অন্য টেলিকম কোম্পানির সাথে চুক্তিবদ্ধ ক্রিকেটারদের ইতোমধ্যে চুক্তি বাতিলের জন্য নোটিশ পাঠানো হয়েছে সংস্থাটির পক্ষ থেকে।

এ নিয়ে বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন বলেন, ‘আন্তর্জাতিক যে কোন টুর্নামেন্ট বা চুক্তিতেই সাধারণত একই ধরনের দুটি প্রতিষ্ঠানকে রাখা হয় না। আইসিসি মেনে চলে এই রীতি। এ নিয়মের কারণে ক্রিকেটাররা আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হলেও দু’পক্ষের আলোচনাতেই টিম স্পন্সরের শর্ত মেনে চলতে আগ্রহী বিসিবি। তাই তো বিসিবিও টিম স্পন্সরের শর্ত মেনে বিষয়টি জানিয়েছে ক্রিকেটারদের।’

এদিকে বিসিবির চুক্তিবদ্ধ ক্রিকেটার হিসেবে মাশরাফি-সাকিব-তামিমরা বছরে প্রায় ৪৮ লাখ টাকা বেতন পান বোর্ড থেকে। অন্যদিকে, ৪ বছরের চুক্তিতে বাংলালিংকের সাথে সাকিবের চুক্তি প্রায় ৫ কোটি টাকার। তামিম-মাশরাফিরাও আরেকটি টেলিকম কোম্পানি থেকে আয় করে কোটি টাকার মত। তাই নতুন নিয়মে বড় ধরনের আর্থিক ক্ষতিতে পড়বেন ক্রিকেটাররা।

Comments

comments