মসুর চাষে হরিনাকুন্ডুতে এবার হতে পারে বাম্পার ফলন

জাহিদুর রহমান তারিক,ঝিনাইদহঃ

ঝিনাইদহের হরিনাকুন্ডু উপজেলায় মসুর চাষে এলাকার কৃষক এবং কৃষিবিভাগ,নতুন নতুন প্রযুক্ত কাজে লাগীয়ে বাম্পার ফলনের আশা করছে। জানা গেছে, উপজেলার ভাইনা ইউনিয়নের কৃষক এনামুল হক কৃষিবিভাগের পরামর্শে ৫০শতক জমিতে উপজেলা কৃষি অফিসার মোঃ আশরাদ আলী চৌধরীর তত্তাবধানে, উপসহকারী কৃষি অফিসার শংকরপালের পরামশে ভাইনা ব্লকের লাইন করে মসুর চাষ করছে কৃষকরা।

কৃষি অফিস সুত্র জানায়, লাইন করে লাগালে মসুর চাষে ফলন ভালো হয়। আগাছা হয়না। আর ভালো বীজ উৎপাদন করতে, সঠিক পরিচর্চার প্রয়োজন হয়। সে দিক দিয়ে এখন কৃষক অনেক সচেতন। উপজেলা কৃষি অফিসার মোঃ আশরাদ আলী চৌধুরী জানান, এবছর হরিনাকুন্ডু উপজেলায় মসুর আবাদ হয়েছে ১৩ শ ৪০ হেক্টর জমিতে,কৃষকরা বাম্পার ফলন পাবে বলে তিনি আশা করছে।

তিনি এ প্রতিবেদকের আরো জানান, এক জন মানুষের প্রতিদিন ৬০ গ্রাম ডাল জাতিও খাদ্য গ্রহন করা উচিত। মসুর ডালে আমিষের পরিমান বেশি থাকে, ডালে ২১% প্রোটিন এবং ৪৩% কার্বোহাইড্রেট থাকে সেই সাথে আঁশ, ফসফেট, ক্যালসিয়াম, আয়রণ এবং ভিটামিন বি-কমপ্লেক্রা থাকে যা শরীরের জন্য উপকারি। যে কারনে আমাদের দেশে চাষী পর্যায়ে উন্নাতমানের ডাল চাষ কৃষকদের মাধ্যমে ভাল বীজ এবং ডাল উৎপাদন করতে হবে বেশি করে তাহলে দেশের পুষ্টির ঘাটতি পুরন করে অর্থনিতির ভাবো সচ্ছল হবে কৃষক বলে তিনি মনে করেণ।

Comments

comments