পুলিশ হেফাজতে সাবেক ফ্রান্স প্রেসিডেন্ট নিকোলা সারকোজি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:
সাবেক ফরাসি প্রেসিডেন্ট নিকোলা সারকোজিকে পুলিশ হেফাজতে আটক রাখা হয়েছে। ২০০৭ সালে লিবীয় নেতা মোয়াম্মার গাদ্দাফির কাছ থেকে নির্বাচনী প্রচারাভিযানের তহবিল আদায়ের একটি অভিযোগের বিষয়ে একজন ম্যাজিস্ট্রেট জিজ্ঞাসাবাদ করছেন তাকে।

আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমগুলো ফরাসি বিচার বিভাগের একজন মুখপাত্রের বরাত দিয়ে মঙ্গলবার এখবর দিয়েছে। তবে এ বিষয়ে নিকোলা সারকোজির আইনজীবীর কোনো বক্তব্য জানা যায়নি।

২০০৭ সালে সারকোজি দলটির প্রধান ছিলেন। ফরাসি সরকার এর বহু পরে ২০১৩ সালে গাদ্দাফির কাছ থেকে অবৈধ পন্থায় নির্বাচনী তহবিল আদায়ের অভিযোগের বিচার বিভাগীয় তদন্ত শুরু করে।

শুধু সাবেক প্রেসিডেন্ট নিকোলা সারকোজিকেই নয়, সারকোজি সরকারের এক মন্ত্রী ও সারকোজির ঘনিষ্ঠ মিত্র বলে পরিচিত ব্রাইস হর্তেফুকেও মঙ্গলবার সকালে এক দফা জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

শুধু সাবেক প্রেসিডেন্ট নিকোলা সারকোজিকেই নয়, সারকোজি সরকারের এক মন্ত্রী ও সারকোজির ঘনিষ্ঠ মিত্র বলে পরিচিত ব্রাইস হর্তেফুকেও মঙ্গলবার সকালে এক দফা জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

তদন্ত-সংশ্লিষ্ট একটি সূত্র জানায়, ২০০৭ থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালনকারী নিকোলা সারকোজি লিবীয় নেতা মোয়াম্মার গাদ্দাফির কাছ থেকে কোনো ধরনের অর্থকড়ি সংগ্রহ করনেনি বলে দাবি করেছেন। এ সংক্রান্ত অভিযোগ তার ভাষায়, ‘উদ্ভট’ অভিযোগ।

উল্লেখ্য, ২০১২ সালের নির্বাচনে ফ্রাঁসোয়া ওলাদেঁর কাছে হেরে ক্ষমতা থেকে বিদায় নেন নিকোলা সারকোজি।

Comments

comments