১০৪ বছর বয়সী বিজ্ঞানী বেছে নিয়েছেন স্বেচ্ছামৃত্যুর পথ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

স্বেচ্ছামৃত্যুর জন্য দেশ ছেড়েছেন ১০৪ বছর বয়সী বিজ্ঞানী। তবে তিনি কোনো রোগে আক্রান্ত হয়ে মরতে চাচ্ছেন না। বয়সের কারণে শরীর ভেঙে যাচ্ছে তাই বেঁচে থাকার কোনো ইচ্ছাই আর কাজ করছে না তার।

১০৪তম জন্মদিনে তার ইচ্ছা একটাই, তিনি মরতে চান। স্বেচ্ছামৃত্যুকে বরণ করে নিতে তাই দেশ ছেড়ে সুইজারল্যান্ডের পথে পাড়ি দিলেন পরিবেশ ও উদ্ভিদবিদ ডেভিড গুডঅল। আগামী ১০ মে সেখানে একটি ক্লিনিকে স্বেচ্ছামৃত্য বরণ করবেন তিনি।

ডেভিড জানিয়েছেন, তার বড় ধরনের কোনো অসুখ নেই। কিন্তু শরীর ভেঙে যাচ্ছে। জীবন দুঃসহ লাগে। এভাবে বাঁচতে চান না কারণ তিনি খুবই কষ্ট পাচ্ছেন।

অস্ট্রেলিয়ায় স্বেচ্ছামৃত্যু নিষিদ্ধ। তারপরেও বাড়িতে একাধিকবার আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন ডেভিড। হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় তাকে। চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন, তার আচরণ বিপজ্জনক হয়ে উঠছে। তারপরই পরিবার ছেড়ে সুইজারল্যান্ডে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন তিনি।

স্বেচ্ছামৃত্যুকে সমর্থন করে এমন একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার সাহায্যে সেখানে যাচ্ছেন ডেভিড। ২০ বছর ধরে ওই সংস্থার সদস্য তিনি। বিমানে বিজনেস ক্লাসের টিকিটের অর্থ দিয়েছেন তার শুভানুধ্যায়ীরা।

১৯১৪ সালের এপ্রিলে, প্রথম বিশ্বযুদ্ধ শুরুর কয়েক মাস আগে লন্ডনে জন্ম হয় ডেভিডের। যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন, অস্ট্রেলিয়ার বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করেছেন তিনি। ডেভিড বলেন, এই বয়স পর্যন্ত বেঁচে থাকার জন্য আমি অনুতপ্ত। আমি মোটেও সুখী না। আমি মরতে চাই।

Comments

comments