রাজীবের পরিবারকে ১ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে হাইকোর্টের নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক:

দুই বাসের রেষারেষিতে চাপা পড়ে হাত হারানোর পর মারা যাওয়া রাজীব হোসেনের পরিবারকে ১ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

মঙ্গলবার বিচারপতি সালমা মাসুদ চৌধুরী ও বিচারপতি একেএম জহিরুল হকের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।
আদালত তিতুমীর কলেজের এই শিক্ষার্থীর পরিবারকে সংশ্লিষ্ট দুই বাসের মালিকপক্ষকে অর্থ দিতে বলেছেন।

আাদলতে রাজীবের দুই ভাই মেহেদী হাসান ও আবদুল্লাহ, খালা জাহানারা পারভীন ও মামা জাহিদুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।

এই অর্থ বিআরটিসি ও স্বজন পরিবহনের মালিককে ৫০ লাখ টাকা করে পরিশোধ করতে হবে। এর মধ্যে এক মাসের মধ্যে ৫০ লাখ টাকা পরিশোধ করে হাইকোর্টে প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে। মামলার পরবর্তী শুনানি আগামী ২৫ জুন ধার্য করা হয়েছে। এদিন রাজীব হোসেন চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যাওয়ার তথ্য হাইকোর্টকে জানান সংশ্লিষ্ট আইনজীবী রুহুল কুদ্দুস কাজল।

প্রসঙ্গত, গত ৩ এপ্রিল দুই বাস চালকের বেপরোয়া গাড়ি চালানো শিকার হন রাজীব। দুই বাসের চাপে হাত কাটা পড়ে তার। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনা নিয়ে সংবাদ প্রকাশের পর ৪ এপ্রিল রিট আবেদন করেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী রুহুল কুদ্দুস কাজল।

হাইকোর্ট অন্তবর্তীকালীন নির্দেশনার পাশাপাশি রুল জারি করেন। রাজীবের চিকিৎসার খরচ স্বজন পরিবহন মালিক এবং বিআরটিসিকে বহনের নির্দেশ দেন হাইকোর্ট।

একই সঙ্গে তাকে ক্ষতিপূরণ হিসেবে ১ কোটি টাকা দিতে কেন নির্দেশ দেয়া হবে না, সাধারণ যাত্রীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে বিদ্যমান আইন কঠোরভাবে কার্যকর করতে কেন নির্দেশনা দেয়া হবে না এবং প্রয়োজনে ভবিষ্যতে এ ধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তি রোধে আইন সংশোধন বা নতুন করে বিধিমালা প্রণয়নের কেন নির্দেশ দেয়া হবে না তা জানতে চাওয়া হয় রুলে।

এ রুল বিচারাধীন অবস্থায় গত ১৬ এপ্রিল ঢামেকে মারা যান রাজীব। এরপর তার মৃত্যুর বিষয়টি গত ৬ মে আদালতকে অবহিত করেন রিটকারী আইনজীবী।

Comments

comments