কাতার বিশ্বকাপেও খেলবেন রোনালদো

স্পোর্টস ডেস্ক:
রাশিয়া বিশ্বকাপের শেষ ষোলোর প্রথম দুই ম্যাচ ট্রাজেডি হয়েই রইলো। ফুটবলের দুই মহাতারকার পতন ঘটলো এ দুই ম্যাচেই। মেসি-রোনালদোর সারাজীবনের অনেক অর্জন যেন খানিকটা ম্লান হয়ে গেলো শনিবার রাতে। তাদের বিশ্বকাপ ট্রফি ছোঁয়ার স্বপ্নপূর্ণ আর হলো না।

২০২২ সালে কাতার বিশ্বকাপে নিজ দেশের প্রতিনিধিত্ব করবেন রোনালদো? নাকি গ্যালারিতে বসে সাবেক হয়ে উৎসাহ দেবেন পরবর্তী প্রজন্মকে? এই প্রশ্ন এখন পর্তুগিজ সমর্থকদের মুখে মুখে।

৩৩ বছর বয়সে রাশিয়া বিশ্বকাপে খেললেন রিয়াল মাদ্রিদ তারকা সিআর-৭। স্বাভাবিকভাবে এটাই রোনালদোর শেষ বিশ্বকাপ হওয়ার কথা। কেননা কাতার বিশ্বকাপে ৩৭ বছর বয়সে পৌঁছাবেন তিনি। তার ফিটনেস ভালো থাকলে কাতার বিশ্বকাপে নিজ দেশের হয়ে মাঠে নামা অসম্ভব কিছু নয় বলে মনে করছেন অনেকেই।

কাতার বিশ্বকাপ নিয়ে কী ভাবছেন নন্দিত এই তারকা? এক সাক্ষাৎকারে বিশ্বকাপ ট্রফি ছোঁয়ার আকাঙ্ক্ষাই ব্যক্ত করেছেন তিনি। কাতারই তার শেষ বিশ্বকাপ হবে বলে জানিয়ে রোনালদো বলেছেন, আমি সেখানে খেললে খুশি হবো। আমি নিশ্চিত কাতারেই আমার শেষ আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্ট হবে।

এতই যখন আলোচনা বয়স নিয়ে, কেউ কি বিশ্বকাপ খেলেছেন ৩৫ এর পর? উত্তরটা হ্যাঁ। আর এজন্য খুব বেশি দূরেও তাকাতে হবে না। এ আসরের মিশরের দিকে তাকালেই সহজেই উত্তরটা মিলে যাবে। মিশরের গোলরক্ষক এসাম এল হাদারি ৪৫ বছর বয়সে নিজ দেশের হয়ে খেলেছেন। এখন পর্যন্ত বিশ্বকাপ আসরে তিনিই বয়োজ্যেষ্ঠ খেলোয়াড়। কিন্তু রোনালদোর কাছে প্রত্যাশাটা অন্যরকম। প্রত্যাশাটা দুর্দান্ত ফর্মের, প্রত্যাশাটা সেরা হওয়ার।

ফিটনেস ধরে রাখতে পারলে কাতারে বিশ্বকাপে খেলতেই পারবেন রোনালদো। কেননা ২০২১ সালের জুন পর্যন্ত রিয়ালের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধও রয়েছেন এই তারকা। তবে ফুটবলের বিশ্ব আসরে খেলতে হলে তার দুর্দান্ত ফর্মটাও ধরে রাখতে হবে। এটা হবে তার জন্য কঠিন চ্যালেঞ্জ।

নিজ দেশকে ইউরো চ্যাম্পিয়নপিপের ট্রফিটাও এনে দিয়েছেন সিআর সেভেন। তবে প্রশ্নটা থেকেই যায় নিজ দেশের জন্য বিশ্বকাপ ট্রফিটা কি তিনি সত্যিই এনে দিতে পারবেন? ভক্তরা কি এ আশা এখনও জিইয়ে রাখবে?

Comments

comments