দুর্নীতির দায়ে নওয়াজ শরিফের ১০ বছর, মেয়ের ৭ বছরের কারাদণ্ড

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

দুর্নীতির দায়ে পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফকে ১০ বছরের কারাদণ্ড এবং তার মেয়ে মরিয়ম শরিফকে সাত বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। পাশাপাশি নওয়াজকে ৮০ লাখ ব্রিটিশ পাউন্ড ও মরিয়মকে ২০ লাখ ব্রিটিশ পাউন্ড জরিমানা করা হয়।

শুক্রবার (৬ জুলাই) পাকিস্তানের জবাবদিহি আদালত নওয়াজের বিরুদ্ধে বিচারাধীন চারটি মামলার একটির রায় ঘোষণায় এ আদেশ দেন। মামলাটিতে সাবেক এ প্রধানমন্ত্রীর মালিকানায় লন্ডনের অভিজাত ভবনে একাধিক অ্যাপার্টমেন্ট থাকার অভিযোগ করা হয়।

মামলার সরকারপক্ষের আইনজীবী সর্দার মুজাফফর আব্বাস সংবাদমাধ্যমকে জানান, লন্ডন পার্ক লেনের অভিজাত অ্যাভেনফিল্ড হাউজে নওয়াজের মালিকানায় থাকা সম্পত্তিগুলো বাজেয়াপ্তের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

নওয়াজ শরিফ ও তার মেয়ে বর্তমানে লন্ডনে অবস্থান করছেন। নওয়াজের ক্যান্সার আক্রান্ত স্ত্রী কুলসুম লন্ডনে চিকিৎসাধীন থাকায় এ মামলার রায় এক সপ্তাহ পিছিয়ে নেওয়ার আবেদন করা হয়েছিল। কিন্তু আদালত এরইমধ্যে রায় ঘোষণা করেন। গত বছর পানামা পেপারস কেলেঙ্কারিতে জড়িত থাকার অভিযোগে প্রধানমন্ত্রীর পদ হারান নওয়াজ।

পানামা ভিত্তিক ল’ফার্ম মোসাক ফনসেকা থেকে ১১.৫ মিলিয়ন নথি ইন্টারনেটে ফাঁস হয়। এর ফলে বিশ্বের ক্ষমতাধর এবং নামকরা সব রাজনীতিবিদ, ব্যবসায়ী, তারকা ও অপরাধীদের আর্থিক কেলেঙ্কারির কথা প্রকাশ্যে আসে। ফাঁস হওয়া এসব তথ্য ‘পানামা পেপারস কেলেঙ্কারি’ নামে পরিচিতি পায়।

পানামা পেপারস কেলেঙ্কারির মাধ্যমে নওয়াজ শরিফের সন্তানদের সঙ্গে অফশোর কোম্পানির যোগাসাজশ প্রকাশ হয়ে পড়ে। এই কোম্পানিগুলোর মাধ্যমেই আভেনফিল্ড হাউজে বিলাসবহুল অ্যাপার্টমেন্ট ক্রয়সহ বিভিন্ন খাতে অবৈধ উপায়ে অর্থ লেনদেন করার অভিযোগ ওঠে।

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে নওয়াজ শরিফকে রাজনৈতিক দলের নেতৃত্ব দানের অযোগ্য ঘোষণা করেন পাকিস্তানের সুপ্রিম কোর্ট। এর ফলে নিজ দল পাকিস্তান মুসলিম লিগ (পিএমএল) প্রধানের পদ থেকেও তিনি চ্যুত হন।

 

সূত্র: বিবিসি

Comments

comments