জাতীয় তিন অধ্যাপককে সংবর্ধনা ইউজিসির

নিউজ ডেস্কঃ

বরেণ্য তিন জাতীয় অধ্যাপককে সংবর্ধনা দিয়েছে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি)। এরা হলেন ইমেরিটাস অধ্যাপক ড. রফিকুল ইসলাম, ইমেরিটাস অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামান ও অধ্যাপক ড. জামিলুর রেজা চৌধুরী।

সোমবার বিকালে রাজধানীর আগারগাঁও ইউজিসি মিলনায়তনে এই সংবর্ধনা দেওয়া হয়। ইউজিসি‘র চেয়ারম্যান প্রফেসর আবদুল মান্নান এর সভাপতিত্বে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ।

এছাড়াও অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ইউজিসি‘র সদস্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ইউসুফ আলী মোল্লা, প্রফেসর দিল আফরোজা বেগম, প্রফেসর ড. এম শাহ নওয়াজ আলি ও প্রফেসর ড. মো. আখতার হোসেন। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বিভিন্ন সরকারী ও বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য, ইউজিসি‘র সাবেক চেয়ারম্যান ও সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ তিন জাতীয় অধ্যাপককে জ্ঞানের বাতিঘর উল্লেখ করে বলেন, ‘তাদের জ্ঞান ও দক্ষতায় দেশ ও জাতি আলোকিত হয়েছে। এই রকম তিনজনকে আমরা জাতীয় অধ্যাপক হিসেবে নির্বাচিত করতে পেরে আমরা সম্মানিতবোধ করছি।’

সংবর্ধনার জবাবে আনিসুজ্জামান বলেন, ‘আমার জীবনের শুরুতে ঠিক করেছিলাম আমি বাংলায় পড়াশোনা করব এবং শিক্ষক হবে। শেষপর্যন্ত আমার জীবনের প্রথম লক্ষ্য দুইটি পূরণ হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘আমার বিশ্বাস শিক্ষাক্ষেত্রে আমি আমার দেশকে যা দিতে পেরেছি, দেশ তার চেয়ের অনেক বেশি আমাকে দিয়েছে। আমি দেশের কাছে ঋণী।’

অধ্যাপক ড. রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘আমার শিক্ষকতা জীবনের ৬০ বছর পূর্ণ হয়েছে। এই দীর্ঘজীবনে আমি ড. মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ, ড. সৈয়দ আলী আহসান, ড. আহমদ শরীফ এর মতো বরেণ্য শিক্ষকদের সান্নিধ্য পেয়েছি। এসব শিক্ষকরা ছিল আমরা জীবনের আদর্শ।’

প্রফেসর জামিলুর রেজা বলেন, ‘আমার জানামতে অতীকে কোনো জাতীয় অধ্যাপককে আজকের মতো সম্মাননা দেওয়া হয়নি। এটা আমার জীবনের অনেক বড় প্রাপ্তি।’ দেশের বাইরে কাজের সুযোগ পেয়েও দেশ ছাড়িনি।  সম্মাননা পাওয়া আমার জন্য অনেক আনন্দের। যদিও সম্মাননা পাওয়ার উদ্দেশ্যে কোনো কাজ করিনি। দেশের জন্য আজীবন কাজ করে যেতে চাই। তিনি আরও বলেন, ‘আজ থেকে ৫৫ বছর আগে শিক্ষকতা শুরু করি। জীবনের শুরুতে অনেক বন্ধুবান্ধব-আত্মীয় স্বজন বলেছে, দেশে থেকে কী করবে? বিদেশে চলে এসো। কিন্তু আমি তাদের ডাকে সাড়া দিইনি। আজ মনে হচ্ছে, দেশ আমাকে যা দিয়েছে, অন্য কোথাও গেলে এমন কিছু দিতে পারত না।’

সভাপতির বক্তব্যে ইউজিসি‘র চেয়ারম্যান প্রফেসর আবদুল মান্নান বলেন, ‘দেশের শ্রেষ্ঠ শিক্ষাবিদদের গুরুত্ব ও মর্যাদা উপলব্ধি করে ইউজিসি তিনজন জাতীয় অধ্যাপককে যে সম্মান ও মর্যাদা প্রদর্শন করেছে তা অনুসরণীয়। দেশের বিভিন্ন সংকটে জাতিকে সঠিক দিকনির্দেশনা প্রদান করেছেন এই শিক্ষাবিদরাই।’

তিনি বলেন, ‘দেশ ও জাতির কল্যাণে গুণীজনদেরকে যথাযথ সম্মান প্রদর্শন করা আমাদের নৈতিক দায়িত্ব।’

উল্লেখ্য গত ১৯ জুন সরকার দেশের তিন বরেণ্য শিক্ষাবিদকে আগামী পাঁচ বছরের জন্য জাতীয় অধ্যাপক হিসেবে নিযোগ প্রদান করেছেন। এর আগে স্বাধীনতার পর বিভিন্ন সময়ে ২২ জনকে জাতীয় অধ্যাপক হিসেবে নিয়োগ প্রদান করেন।

Comments

comments