সোমবার মন্ত্রিসভায় উঠছে ‘সড়ক পরিবহন আইন-২০১৮’

নিজস্ব প্রতিবেদক:
শিক্ষার্থীদের নিরাপদ সড়ক বাস্তবায়নের দাবিতে আন্দোলনের মধ্যেই সোমবার (৬ আগস্ট) মন্ত্রিসভা বৈঠকে চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য উঠছে ‘সড়ক পরিবহন আইন-২০১৮’ এর খসড়া।

সোমবার সকাল ১০টায় সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সভাকক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে।

গত ২৯ জুলাই রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কের জাবালে নূর পরিবহনের বাস চাপায় দুই কলেজ শিক্ষার্থী নিহত হন। পরের দিন থেকে রাজধানীর সড়কে অবস্থান করে বেপোরোয়া বাস চালকের ফাঁসি, রাস্তায় ফিটনেসবিহীন গাড়ি চলাচল এবং ড্রাইভিং লাইসেন্স ছাড়া গাড়ি চালনা বন্ধসহ ৯ দফা দাবি আদায়ে আন্দোলনে নামে শিক্ষার্থীরা। রোববারও (৫ আগস্ট) অব্যাহত ছিল শিক্ষার্থীদের সেই আন্দোলন।

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের জানিয়েছেন, প্রস্তাবিত সড়ক পরিবহন আইন বাস্তবায়ন হলে শিক্ষার্থীদের অনেক দাবিই পূরণ হয়ে যাবে।

গত বছরের ২৭ মার্চ ‘সড়ক পরিবহন আইন’ এর খসড়া নীতিগত অনুমোদন দেয় মন্ত্রিসভা। খসড়া আইনে পরিবহনখাতে বিভিন্ন অপরাধের জন্য কঠোর শাস্তির বিধান রাখা হয়।

কিন্তু পরিবহন মালিক ও শ্রমিকরা এই খসড়া আইনের বিরোধীতা শুরু করেন। এই প্রেক্ষাপটে প্রায় দেড় বছর হয়ে গেলেও আইনটি চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য মন্ত্রিসভায় উপস্থাপন করা হয়নি।

গত ১ আগস্ট সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে ‘সড়ক পরিবহন আইন’ ৬ আগস্ট মন্ত্রিসভার বৈঠকে চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য উপস্থাপন করা হবে।

ওইদিনই আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয় থেকে জানানো হয়, সড়ক পরিবহন আইনের ভেটিং সম্পন্ন করেছে আইন মন্ত্রণালয়। আইনমন্ত্রী আনিসুল হক এ আইনের ভেটিং সম্পর্কিত নথিতে অনুমোদন দিয়েছেন। নথিটি সড়ক পরিবহন মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হচ্ছে।

আইনমন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, ‘যেসব কারণে সড়ক দুর্ঘটনা হতে পারে, সেগুলোর ব্যাপারে আইনে পর্যাপ্ত বিধান রাখা হয়েছে কি না, কিংবা দুর্ঘটনা যাতে না ঘটে সে রকম পর্যাপ্ত বিধান আইনের মধ্যে আছে কি না এবং আইনে কোনো ফাঁক-ফোঁকর আছে কি-না এসব পুঙ্খানুপুঙ্খ রূপে দেখে সড়ক পরিবহন আইনটি প্রস্তুত করা হয়েছে।

অপরদিকে রোববার বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে সড়ক পরিবহন আইনে সড়ক দুর্ঘটনায় দায়ীদের সর্বোচ্চ শাস্তির বিধান অন্তর্ভুক্তির দাবি জানিয়েছে। একই সঙ্গে সড়ক দুর্ঘটনায় আহতদের সুচিকিৎসা নিশ্চিত এবং নিহত পরিবারকে উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ দিতে প্রস্তাবিত আইনে ‘সড়ক নিরাপত্তা তহবিল’ গঠনের বিষয়টি অন্তর্ভুক্ত করারও দাবি জানিয়েছে তারা।

Comments

comments