১৫ লক্ষ টাকা হলে বেঁচে যাবে মিরাজ

কৃষিবিদ ফিরোজ কবির কিরণ:
মিরাজ, পুরো নাম মিরাজ মোরশেদ ইবনে হাসান । দারুন মেধাবী, চঞ্চল, দুষ্টু একটা ছেলে।

ছোটবেলা থেকে খুব কাছ থেকে তাকে দেখার সৌভাগ্য হয়েছে আমার। আমি যখন ক্লাস নাইনে পড়ি, তখন ওর বাবার কাছে বিজ্ঞানের জটিল সব বিষয় পড়তে যেতাম। যখন তার বাবা আমাদেরকে পড়াতেন, তখন মাঝে মাঝে ছোট্ট গুঁটি গুঁটি পায়ে স্যারের সেই ছোট্ট রুমটাতে আসতেন। এসে আমাদের সাথে বেঞ্চ এ বসে আমাদের খাতা নিয়ে তার ছোট্ট হাতে নানান রকম ছবি আঁকতো। তার বাবার হাতেই তার পড়ালেখায় হাতেখড়ি।

তারপর অনেকদিন দেখা হয় না সেই ছোট্ট মিরাজ এর সাথে। সে এখন রংপুর জিলা স্কুলের দশম শ্রেণির ছাত্র। তার ইচ্ছা সে বড় হয়ে একজন পরমাণু বিজ্ঞানি হবে। তাই বিজ্ঞান বিভাগে ভর্তি হয় সে। ইতোমধ্যে বিভিন্ন রকম প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষায় সে কৃতিত্বের স্বাক্ষর রেখেছে সে। এইতো আর কয়মাস পরেই তার এসএসসি পরীক্ষা।

স্কুল শেষে প্রতিদিন জিলা স্কুলের সেই বিশাল মাঠটাতে বন্ধুদের সাথে ক্রিকেট খেলে সে। একদিন বিকেলে খেলতে খেলতে মাথা ঘুরে পড়ে যায় সে। তারপর, তার বন্ধুরা আর পরিবারের লোকজন মিলে তাকে ডাক্তারের কাছে নিয়ে যায়।

ডাক্তার তাকে প্রচুর টেস্ট করতে দেয়। ডায়াগনোসিস রিপোর্ট যখন ডাক্তারের কাছে আসে, তখন ডাক্তার তার বাবাকে বলে যে, তার ব্রেন টিউমার হয়েছে।তার বাবার মাথায় তখন আকাশ ভেঙ্গে পড়েছিল কিনা জানি না। কিন্তু তার থেকে বেশি বৈ কম হয়নি এটা সত্যি।

এরপর দীর্ঘ কয়মাস ধরে ঢাকায় বিভিন্ন বিশেষায়িত হাসপাতালে ডাক্তার দেখানোর পরও তার অবস্থার কোন উন্নতি হয় নি।এমনিতে তার বাবা নিজেই অনেক জটিল রোগের রোগী। দীর্ঘ দশ বছর ধরে ভারতের বিভিন্ন জায়গায় স্যারের ট্রিটমেন্ট বাবদ প্রচুর টাকা ব্যয় হয়েছে।

স্কুলে শিক্ষকতা করিয়ে যে কয় টাকা রোজগার করেন তার বেশিরভাগ-ই ব্যয় হয়, ব্যাংক আর পাওনাদারের টাকা শোধ করতে। এখন নিজের যে ভিটেমাটি টুকু আছে সেটিও বিক্রির উপক্রম । কিন্তু সেটা করেও যদি তার ছোট্ট ছেলেকে বাঁচানোর জন্য টাকার ব্যবস্থা করতে পারতেন তাহলেও আর এভাবে আমাকে লিখতে হত না। কারণ, তার ছেলেকে বাঁচানোর জন্য যে দরকার আনুমানিক ১৫ লক্ষ টাকা।

সেই, মিরাজ যার কথা এতক্ষন ধরে বলছিলাম তাকে বাঁচানোর জন্য আনুমানিক ১৫ লক্ষ টাকা প্রয়োজন। এদেশের বিশেষজ্ঞ ডাক্তাররা তাকে অতি দ্রুত দেশের বাইরে উন্নত চিকিৎসার জন্য নিয়ে যেতে বলেছেন। তাই, সকলের কাছে অনুরোধএই ছোট্ট ছেলেটাকে সুস্থ করার জন্য সবাই যার যার স্থান থেকে এগিয়ে আসুন। হয়তোবা আপনার একটু সাহায্যই পারে, এই ছোট্ট ছেলেটার জীবন রক্ষা করতে।

মিরাজকে আর্থিকভাবে সাহায্য করতে চাইলে, সাহায্য পাঠাতে পারেন নিচের ঠিকানায়___
১) মোঃ মোতাহারুল হাসান
ব্যাংক একাউন্ট নং – ০০২০২৮৭৫৮
সোনালী ব্যাংক লিমিটেড, হারাগাছ শাখা।

২) বিকাশ একাউন্ট নং- ০১৭২১০৩০৮১৭ ( ব্যক্তিগত )
৩) রকেট একাউন্ট নং- ০১৮৭৮০৩৬৮২৪৯ ( ব্যক্তিগত )

এছাড়াও সরাসরি সাহায্যের জন্য যোগাযোগ করতে চাইলে, যোগাযোগ করতে পারেন___
নামঃ- ডাঃ মোঃ মাহামুদুল হাসান মোহন
সম্পর্কঃ- চাচা
মোবাইল নং – ০১৭১৭-৫৮৮৩০৭

Comments

comments