বিভিন্ন মেয়াদে চবির ১১ শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি:
শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) বিভিন্ন মেয়াদে ১১ শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৫ সেপ্টেম্বর) রাতে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সহকারী প্রক্টর নিয়াজ মোরশেদ রিপন।

তিনি বলেন, বোর্ড অব রেসিডেন্স, হেলথ অ্যান্ড ডিসিপ্লিন কমিটির রিপোর্টের সুপারিশক্রমে উপাচার্য অধ্যাপক ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী নির্বাহী আদেশে এ ১১ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে বহিষ্কার আদেশ দেন। প্রত্যেকের বহিষ্কারাদেশ মঙ্গলবার (২৫ সেপ্টেম্বর) থেকেই কার্যকর হবে।

নিয়াজ মোরশেদ রিপন জানান, ২৯ মার্চ সোহরাওয়ার্দী হলে ইতিহাস বিভাগের গিয়াস উদ্দীন ইমরানকে মারধরের ঘটনায় আধুনিক ভাষা ইনস্টিটিউটের সামদানি রহমান এক বছরের জন্য বহিষ্কার হয়েছেন।

৩০ জুলাই মেরিন সায়েন্স বিভাগ ও আমানত হলের ৩০৬ নং কক্ষ থেকে আবাসিক ছাত্র জাহিন খন্দকারের রুম থেকে ল্যাপটপ চুরির ঘটনায় একই বিভাগের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের রিফাত হাসান এবং একই শিক্ষাবর্ষের উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগের কাউসার ইবনে হাসান ছয় মাসের জন্য বহিষ্কার হয়েছেন।

৯ সেপ্টেম্বর যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী সালাউদ্দীন চৌধুরী এবং কম্পিউটার সায়েন্স বিভাগের সান্তনু নাথকে মারধরের ঘটনায় ইতিহাস বিভাগের ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষের এমাদ উদ্দীন, ইসলামের ইতিহাস বিভাগের ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের সালাহউদ্দীন সাজ্জাদ, একই শিক্ষাবর্ষের লোক প্রশাসন বিভাগের ইব্রাহিম খলিল ও পদার্থবিদ্যা বিভাগের ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের লিপটন দাশ দুই মাসের জন্য বহিষ্কার করা হয়।

১০ সেপ্টেম্বর চবির কর্মরত সাংবাদিক মিনহাজুল ইসলামকে মারধরের ঘটনায় ইংরেজি বিভাগের ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষের মাহমুদুল হাসান রূপক এক বছর, ইতিহাস বিভাগের ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের সাব্বির হোসেন ও রাজিবুল আলম এবং মার্কেটিং বিভাগের ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের তৈমুর হোসেন দুই মাসের জন্য বহিষ্কার করা হয়।

Comments

comments