ফিঞ্চের অন্যরকম রেকর্ড টেস্ট আঙিনায় পা রেখে

স্পোর্টস ডেস্ক:

শনিবার শেষ বিকেলেই জানা গিয়েছিল তিন অভিষিক্ত নিয়ে পাকিস্তানের বিপক্ষে অস্ট্রেলিয়া। রোববার ম্যাচের টসের মধ্য দিয়ে নিশ্চিত হয়ে যায় অ্যারন ফিঞ্চ, ট্রাভিস হেড ও মারনাস লাবুচানের অভিষেক।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে প্রায় ৭ বছর কাটিয়ে টেস্ট অভিষেক হলো অ্যারন ফিঞ্চের। এতোদিন অপেক্ষার পরে টেস্ট আঙিনায় এসে রেকর্ড গড়েছেন ফিঞ্চ। ২০১১ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেকের পর থেকে টেস্ট অভিষেকের আগপর্যন্ত ৯৩টি ওয়ানডে ও ৪২টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন তিনি।

দুই ফরম্যাট মিলিয়ে মোট ১৩৫টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলার পরে তবেই মিলেছে অভিজাত ব্যাগি গ্রিন ক্যাপ। আর কোনো অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটারকে টেস্ট ক্রিকেট খেলার আগে এতোগুলো আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলতে হয়নি। এতো দিন ধরে অস্ট্রেলিয়ানদের মধ্যে এই রেকর্ড ছিল অ্যান্ড্রু সাইমন্ডসের দখলে। তাকে খেলতে হয়েছিল ৯৪ টি আন্তর্জাতিক।

তবে নিজ দেশের হয়ে টেস্ট অভিষেকের আগে সবচেয়ে বেশি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলার রেকর্ড গড়লেও সবমিলিয়ে এ তালিকার দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছেন ফিঞ্চ। ভারতীয় ক্রিকেটার রোহিত শর্মা টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেকের পূর্বে খেলেছিলেন ১৪৪টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ।

রোহিত ও ফিঞ্চ ব্যতীত টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেকের আগে ১০০+ ম্যাচ খেলা ক্রিকেটারের সংখ্যা আর মাত্র ২। জিম্বাবুয়ের চামু চিবাবা ১২৬ এবং ভারতের সুরেশ রায়নাকে অপেক্ষা করতে হয়েছিল ১১৬টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ।

ফিঞ্চের অভিষেকের দিনে দুবাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টসে জিতে আগে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পাকিস্তান। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ১৫ ওভার শেষে তাদের সংগ্রহ বিনা উইকেটে ৪৪ রান। ইমাম উল হক ১২ ও মোহাম্মদ হাফিজ ২৭ রান নিয়ে খেলছেন।

পাকিস্তান একাদশ: মোহাম্মদ হাফিজ, ইমাম উল হক, আজহার আলী, আসাদ শফিক, হারিস সোহাইল, বাবর আজম, সরফরাজ আহমেদ, ইয়াসির শাহ, বিলাল আসিফ, ওয়াহাব রিয়াজ ও মোহাম্মদ আব্বাস।

অস্ট্রেলিয়া একাদশ: অ্যারন ফিঞ্চ, উসমান খাজা, শন মার্শ, মিচেল মার্শ, ট্রাভিস হেড, মারনাস লাবুচানে, টিম পেইন, মিচেল স্টার্ক, পিটার সিডল, জন হল্যান্ড ও নাথান লিওন।

Comments

comments