বদরগঞ্জে মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়েছে ক্ষুরারোগ

সনজিৎ কুমার মহন্ত, রংপুর প্রতিনিধি:
বদরগঞ্জে মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়েছে গরুর ক্ষুরারোগ। উপজেলা প্রানিসম্পদ অফিস বলছে পর্যাপ্ত টিকা না থাকার কথা। আজ মঙ্গলবার (১২জানুয়ারি) সরেজমিনে উপজেলা ঘুরে এমন তথ্যই পাওয়া গেছে।

কথা হয় পৌরশহরের শাহাপুর মহল্লার ওবায়দুল হক বাদলের সাথে। তিনি জানান, আমার এই ক্ষুরারোগে ২টি গরু মারা গেছে। একটির দাম প্রায় ২লাখ অপরটির দেড় লাখ টাকা। একই এলাকার ছাদেকুল ইসলাম, কাজি আজাহার আলির ২টি করে গরু মারা গেছে। যার আনুমানিক মূল্য ৪লাখ টাকা। উপজেলার

রামনাথপুর ইউনিয়নের মুন্সিপাড়া গ্রামের নূর আলম,শাহাবুল, তসলিম,মাহাবুর, আনোয়ার আলি,দবির উদ্দিনের মোট ৮টি গরু, কালুপাড়া ইউনিয়নের মোহাম্মদ আলি, হারুন মিয়া, মোজাহারুল মিয়ার মোট ৫টি, পৌরশহরের বালুয়াভাটা মহল্লার আবু তালহা,মহাবীর,নজরুল ইসলাম,শামিম মিয়ার ৪টি সহ পুরো উপজেলায় ক্ষুরারোগ ভয়াবহ আকার ধারন করেছে। এতে করে বসতবাড়িতে পালিত গরু সহ খামারিরা পড়েছেন চরম বিপাকে। এ অবস্থা চলতে থাকলে খামারিদের আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হওয়া সহ খামার ব্যবসায় ধ্বস নামার আশংকা করছেন তারা ।

এ দিকে সাবেক সংসদ সদস্য অধ্যাপক পরিতোষ চক্রবর্তী নিজ খামারের গরু নিয়ে চিন্তিত বলে এ প্রতিবেদককে জানান।

উপজেলা প্রানিসম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ রিয়াজ উদ্দিন আহম্মেদ মহামারি আকারে ক্ষুরারোগ ছড়িয়ে পড়ার কথা স্বীকার করে জানান আমাদের কাছে পর্যাপ্ত ওষুধ কিংবা ভেকসিন নেই, গরুর ক্ষুররোগ হওয়ার আগেই ব্যবস্থা নিতে হয়। আক্রান্ত গরুকে টিকা কিংবা ভ্যাকসিন দিয়ে কোন লাভ হয় না।

Comments

comments