চীনের সঙ্গে ইমরান চান বহুমুখী সম্পর্ক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান আশা করেছেন, চীনের সঙ্গে তার দেশের সম্পর্ক হবে বহুমুখী। চীনের রাজধানী বেইজিংয়ে সেন্ট্রাল পার্টি স্কুলে বক্তৃতা দেয়ার সময় তিনি এ আশাবাদ ব্যক্ত করেন। খবর পার্স ট্যুডে।

ইমরান খান বলেন, পাকিস্তানের বর্তমান যে জিডিপি, ৩০ বছর আগে চীনের তাই ছিল। গত ৩০ বছরে চীন একক কোনো পদক্ষেপ নেয়নি বরং নানামুখী পদক্ষেপের কারণে যে অভাবনীয় উন্নতি করেছে তা কেউ করতে পারেনি।

অনুষ্ঠানে ইমরান খান শ্রোতাদের সামনে ব্যাখ্যা করে বলেন, দুর্নীতি নির্মুলের মাধ্যমে তার সরকার পাকিস্তানের রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠানগুলোকে শক্তিশালী করার উদ্যোগ নিয়েছে এবং এজন্য চীনের কাছ থেকে সহযোগিতা দরকার।

ইমরান খান বলেন, কোনো দেশ ৭০ কোটি মানুষকে দারিদ্রের বাইরে আনতে পারেনি যা পেরেছে চীন। কীভাবে এটা সম্ভব হয়েছে আমার দল তা শিখতে চায়। এর পাশাপাশি শ্বেত-দুর্নীতির বিরুদ্ধে যুদ্ধ করতে হবে। সাধারণ অপরাধীকে ধরা সহজ কিন্তু সরকারি কর্মকতা কিংবা ব্যবসায়ীদের দুর্নীতির বিরুদ্ধে যুদ্ধ সহজ কাজ নয়। এ সময় তিনি অর্থ পাচারকে অন্যতম বড় দুর্নীতি বলে উল্লেখ করেন।

১৯৮০ সালের কথা উল্লেখ করে ইমরান খান বলেন, ওই সময় পাকিস্তানের উন্নয়ন কর্মসূচি বাধার মুখে পড়ে, কারণ দেশ দুর্নীতির কবলে পড়েছিল। দুর্নীতি রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠানগুলোকে ধ্বংস করেছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

পাক প্রধানমন্ত্রী বলেন, ১৯৮০’র দশকের দুর্নীতি তুলে ধরার বিষয়ে আমি উৎসাহিত হয়েছিলাম কিন্তু কেউ আমার কথাকে গুরুত্ব দেয়নি। তবে সে সময় আমি একজন খেলোয়াড় হিসেবে শিখেছিলাম যে, আপনি যদি আশা ছেড়ে দেন তাহলে হেরে যাবেন।

Comments

comments