নেত্রকোনার ‘শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয়’ প্রকল্প অনুমোদন

নিজস্ব প্রতিবেদক:
দেশের সর্বশেষ বিভাগ ময়মনসিংহের নেত্রকোনায় ‘শেখ হাসিনা বিশ্বিবদ্যালয়’ স্থাপনে একটি প্রকল্পের অনুমোদন দেয়া হয়েছে। এতে ব্যয় ধরা হয়েছে ২ হাজার ৬৩৭ কোটি টাকা। বুধবার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় এই প্রকল্প অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

রাজধানীর এনইসি সম্মেলন কেন্দ্রে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে একনেক সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় মোট ২৮টি প্রকল্পের অনুমোদন দেয়া হয়। এসব প্রকল্প বাস্তায়নে ব্যয় হবে ৩০ হাজার ২৩৪ কোটি ৬০ লাখ টাকা। সভা শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, নেত্রকোনায় বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনে একটি প্রকল্প নেয়া হয়েছে। প্রকল্পের আওতায় অধিগ্রহণ করা হবে ৫০০ একর জমি। নির্মাণ করা হবে ১০ তলাবিশিষ্ট তিনটি একাডেমিক ভবন, শিক্ষার্থীদের চারটি হল ও প্রশাসনিক ভবন। শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের জন্যও থাকবে আবাসনের ব্যবস্থা। ২০২১ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে এর কাজ শেষ করবে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন ও শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয়, নেত্রকোনা কর্তৃপক্ষ।

তিনি জানান, ২০১৭ সালে মন্ত্রিসভায় অনুমোদন দেয়া হয় ‘শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয়’। এখন এর স্থায়ী রূপ দিতে প্রকল্পটি নেয়া হয়েছে। গবেষণাধর্মী এ বিশ্ববিদ্যালয়ে মানবিক, বিজ্ঞান, তথ্যপ্রযুক্তি, সামাজিক বিজ্ঞান ও বাণিজ্যের বিষয়গুলো পড়ানো হবে। স্নাতক ও স্নানকোত্তরসহ এমফিল ও পিএইচডি ডিগ্রি দেয়া হবে এ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে। ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষ থেকে বিশ্ববিদ্যালয়টিতে চারটি বিভাগে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে।

চলতি বছরের ২৮ জানুয়ারি ‘শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয় বিল-২০১৮’ জাতীয় সংসদে পাস হয়।

মন্ত্রী আরও জানান, নতুন এ বিশ্ববিদ্যালয়ে খেলাধুলার পর্যাপ্ত জায়গা রাখার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বৃষ্টির পানি সংরক্ষণে বিশ্ববিদ্যালয়টিতে ব্যবস্থা রাখারও নির্দেশনাও দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। হাওড় অঞ্চলের এ বিশ্ববিদ্যালয়ে হাওরের অর্থনীতি ও উন্নয়ন নিয়ে গবেষণা করতেও শেখ হাসিনা নির্দেশ দিয়েছেন।

আ হ ম মুস্তফা কামাল আরও বলেন, ইতোমধ্যেই অনেক প্রকল্প অনুমোদন পেয়েছে। গুণগত মান বজায় রেখে এসব প্রকল্প বাস্তবায়নের মাধ্যমে দেশের কাজে লাগানো বস্তবায়নকারী মন্ত্রণালয়গুলোর দায়িত্ব।

তিনি জানান, আজকের সভায় মোট ২৮ প্রকল্পের অনুমোদন দেয়া হয়েছে। এসব প্রকল্প বাস্তায়নে ব্যয় হবে ৩০ হাজার ২৩৪ কোটি ৬০ লাখ টাকা। এর মধ্যে সরকারের নিজস্ব তহবিল থেকে ব্যয় হবে ২৪ হাজার ৮৫৪ কোটি ৬৮ লাখ টাকা। বাস্তবায়নকারী সংস্থাগুলো নিজেদের তহবিল থেকে ব্যয় করবে ৫৩৯ কোটি ১৭ লাখ টাকা। অবশিষ্ট ৪ হাজার ৮৪০ কোটি ৭৫ লাখ টাকা প্রকল্প সহায়তা হিসেবে বিদেশি উৎস থেকে সংগ্রহ করা হবে।

Comments

comments