পূর্ণ শাস্তি ভোগ করেই মাঠে ফিরতে হবে স্মিথ-ওয়ার্নারদের

স্পোর্টস ডেস্ক:

জোর গুঞ্জন শোনা যাচ্ছিলো শাস্তির পুরো মেয়াদ ভোগ করার আগেই ক্ষমা পেতে যাচ্ছেন বল টেম্পারিং কান্ডে নিষিদ্ধ হওয়া তিন অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটার ক্যামেরন বেনক্রফট, ডেভিড ওয়ার্নার ও স্টিভেন স্মিথ। কিন্তু ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া (সিএ) স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে তারা যে ঘৃণ্য কাজটি করেছেন, সে কাজের বিপরীতে পূর্ণ শাস্তি ভোগ করেই মাঠে ফিরতে হবে স্মিথ-ওয়ার্নারদের।

ভারতের বিপক্ষে সিরিজ শুরু হওয়ার আগে কথা উঠে গিয়েছিল অস্ট্রেলিয়ার দুই নিষিদ্ধ ক্রিকেটার স্টিভেন স্মিথ আর ডেভিড ওয়ার্নারের ফেরা নিয়ে। অনেকেই বলতে শুরু করে দিয়েছিলেন, ভারতের বিপক্ষেই কি তবে ফিরছেন দুই নিষিদ্ধ ক্রিকেটার? যদিও বিভিন্ন মাধ্যমে খবর জানা গিয়েছে, আগামী বিশ্বকাপের আগেই ফিরবেন তারা। তবে পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজেই চোখ রাখা হয়েছে স্মিথ এবং ওয়ার্নারের ফেরার জন্য।

বল টেম্পারিং কেলেঙ্কারির কারণে স্মিথ-ওয়ার্নারসহ তিন ক্রিকেটারকে পাঠানো হয়েছে নিষেধাজ্ঞার কবলে। বাকিজন ক্যামেরন বেনক্রফট। যদিও নিষেধাজ্ঞা শেষ হওয়ার আগেই নানা মহল থেকে চাপ আসছে, শাস্তি তুলে নেয়ার জন্য। এমনকি চাপের মুখে সরে দাঁড়িয়েছেন অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট বোর্ডের অনেক কর্মকর্তা।

যার ফলে তিন ক্রিকেটারের নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে সোমবার বৈঠকে বসেছিল সিএ। সেখানেই নির্ধারিত হয়ে গিয়েছে তিন ক্রিকেটারের ভাগ্য। চারপাশ থেকে নানান চাপ এলেও স্মিথ-ওয়ার্নারদের প্রতি নমনীয় হয়নি সিএ। জানিয়ে দিয়েছে পূর্ণ সাজা ভোগ করেই তবে তারা ফিরতে পারবেন।

ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার অন্তর্বর্তীকালীন চেয়ারম্যান আর্ল এডিংস বলেন, ‘ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া বোর্ড সবকিছু নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করেছে। এ ব্যাপারে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেটার্স অ্যাসোসিয়েশনের সহযোগিতার জন্য ধন্যবাদ। তবে আমরা মনে করি এখন তাদের শাস্তি কমানো বা শাস্তি শেষ হওয়ার আগেই মাঠে নামতে দেয়াটা যথাযথ হবে না। পূর্ণ শাস্তি ভোগ করেই তাদের ফিরতে হবে।’

অর্থাৎ এক বছরের নিষেধাজ্ঞা পাওয়া স্মিথ ও ওয়ার্নারের মাঠে ফিরতে হবে অপেক্ষা করতে হবে আগামী বছরের মার্চের ২৯ তারিখ পর্যন্ত। তবে নয় মাসের নিষেধাজ্ঞা পাওয়া বেনক্রফটের শাস্তি উঠে যাচ্ছে ২৯ ডিসেম্বর। ফলে ভারতের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে শেষের দিকে খেলার সুযোগ থাকছে তার। শাস্তি উঠে গেলে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ফিরে নিজেকে তৈরি করার সুযোগ পাবেন তিনি।

Comments

comments