কৃষিবিদদের উপর হামলার প্রতিবাদে বাকৃবিতে মানববন্ধন

বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি:
গত বৃহস্পতিবার কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশ (কেআইবি) চত্বর ও কৃষি গবেষণা কাউন্সিলের (বিএআরসি) সামনে ‘সালেহ-মোয়াজ্জেম’ প্যানেলের সমর্থক ও বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বাকৃবি) গ্রাজুয়েটদের উপর অতর্কিত হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে বাকৃবি প্রশাসন।

শনিবার (২৪ নভেম্বর) দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের মুক্তমঞ্চের সামনে ওই মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র বিষয়ক উপদেষ্টা প্রফেসর ড. মো. সোলায়মান আলী ফকির সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য দেন শিক্ষক সমিতির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি প্রফেসর ড. কাজী শাহানারা বেগম, পোল্ট্রি বিজ্ঞান বিভাগের প্রফেসর ড. সুবাস চন্দ্র দাস, কর্মকর্তা পরিষদের সভাপতি আরিফ জাহাঙ্গীর এবং আতিকুজ্জামান রয়েল, বাকৃবি শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি সবুজ কাজী এবং সাধারণ সম্পাদক মিয়া মোহাম্মদ রুবেল, বাকৃবি সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের সভাপতি রাফিকুজ্জামান ফরিদ (মার্কসবাদী) এবং সৌরভ দাস ও ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি ধ্রুবজ্যোতি সিংহ প্রমুখ। এসময় মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. মো. আতিকুর রহমান খোকন, শিক্ষক, কর্মকর্তাসহ প্রায় ৪ শতাধিক শিক্ষার্থী

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে হওয়ার জন্য আমরা বেশ কিছু দাবি জানিয়েছিলাম। কিন্তু কোন ধরনের উদ্যোগ নেননি কেআইবি নির্বাচন কমিশন। পোলিং অফিসার নিয়োগে আমাদের প্রতিনিধি রাখার কথা জানালেও তাতে তারা কর্ণপাত করেননি। আর এ কারণে কৃষিবিদ ড. মো. আব্দুল আজিজ হাইকোর্টে আপিল করলে আদালত কেইআইবি নির্বাচন স্থগিতাদেশ দেন। মূলত এ কারণেই রাতের আঁধারে বাকৃবির গ্রাজুয়েট অবসরপ্রাপ্ত মৎস্য কর্মকর্তা ও কেআইবি ২০১৯-২০ নির্বাচন কমিশনের সদস্য কৃষিবিদ মজিবুর রহমান, বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক কৃষিবিদ সারোয়ার মোর্শেদ জাস্টিস, বাকৃবি শাখা ছাত্রলীগের সহসভাপতি এম আনোয়ারুল হকসহ অনেকের ওপর অতর্কিত হামলা চালায় নীতিশ-প্রিন্স প্যানেলের অনুসারীরা। কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন ও বিএআরসির মত জায়গায় এমন ঘটনা কোনদিন ঘটেনি। কোন কারণ ছাড়াই তারা বাকৃবি গ্রাজুয়েটদের উপর হামলা চালিয়েছে। হামলার সাথে জড়িতদের দ্রুত শাস্তির আওতায় এনে কঠোর শাস্তির দাবি জানাচ্ছি। এদিকে বাকৃবি ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে একটি সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বাকৃবি ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি কৃষিবিদ সারোয়ার মোর্শেদ জাস্টিস এবং বাকৃবির অন্যান্য কৃষিবিদদের ওপর অতর্কিত হামলাকারীদের আইনের আওতায় এনে কঠোর শাস্তির দাবি করে।

Comments

comments