আইপিএলে দিল্লি ডেয়ারডেভিলসের নতুন নামকরণ

স্পোর্টস ডেস্ক:

আইপিএলের ১১তম আসর অনুষ্ঠিত হয়েছে চলতি বছর এপ্রিল-মে’তে। আগামী বছর অনুষ্ঠিত হবে ১২তম আসর। তার আগেই নাম পাল্টে ফেললো দিল্লি ডেয়ারডেভিলস। নতুন স্পন্সরের হাত ধরে নতুন নামে আগামী আইপিএলে খেলতে নামবে দিল্লির ফ্র্যাঞ্চাইজি। দিল্লি ডেয়ারডেভিলস থেকে আজ দলটি আত্মপ্রকাশ করলো দিল্লি ক্যাপিটালস নামে।

এক জমকালো অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে নাম পরিবর্তনের এই আয়োজনটি করা হয়। ভারতের রাজধানীর ফ্রাঞ্চাইজি বলে কথা। এ বিষয়টা মাথায় রেখেই দলের নতুন নামকরণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন দিল্লি ফ্র্যাঞ্চাইজির নতুন স্পন্সর জেএসডব্লিউ স্পোর্টসের পরিচালক পার্থ জিন্দাল। তিনি বলেন, ‘আমাদের সাপোর্টিং স্টাফরা নতুন ট্যালেন্ট খোঁজার কাজ করছে। এর উদাহরণ সন্দিপ লামিচানে। এই মৌসুমেও দেশের প্রতিভা তুলে আনার দায়িত্বে রয়েছে মোহাম্মদ কাইফ। শিখর ধাওয়ান আইপিএলের দারুণ পারফর্মার। আশা করি, ওর অভিজ্ঞতা আমাদের কাজে লাগবে।’

২০১৯ আইপিএলে দিল্লি ক্যাপিটালসকে নেতৃত্ব দেবেন শ্রেয়াস আয়ার। দলের নতুন নাম করণ নিয়ে বক্তব্য রেখেছেন ক্যাপিটালস অধিনায়কও। ধাওয়ানকে দলে নেয়া হলেও সাবেক অধিনায়ক গৌতম গম্ভীরসহ বেশ কয়েকজন তারকা ক্রিকেটারকে এবার ছেঁটে ফেলেছে দিল্লি। গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, জেসন রয়, লিয়াম প্লানকেট এবং ভারতীয় পেসার মোহাম্মদ শামির উপর আস্থা হারিয়েছে দিল্লি ফ্র্যাঞ্চইজি।

দিল্লির এই ফ্র্যাঞ্চাইজি গত ১১ বছরে একবারও আইপিএলের ফাইনালে উঠতে পারেনি। প্রথম দুই আসরে শেষ চারে পৌঁছালেও এরপর থেকে গ্রাফ ক্রমশ নিম্নগামী। ২০১২ মৌসুমে পঞ্চম আসরে তিন নম্বরে থেকে শেষ করেছিল দিল্লি; কিন্তু তার পর থেকে গত ছয় বছরের গ্রুপ পর্বের গণ্ডিও টপকাতে পারেনি ভারতের রাজধানী শহরের দলটি।

বারবার কোচ ও অধিনায়ক পরিবর্তন করেও কোনো লাভ হয়নি। আগামী আইপিএলে দিল্লি ক্যাপিটালসের অধিনায়ক শ্রেয়াস আয়ারের সঙ্গে দলটির কোচের দায়িত্ব পালন করবেন সাবেক অসি অধিনায়ক রিকি পন্টিং। তার সহকারী হিসেবে কাজ করবেন ভারতের ২০০২ ন্যাটওয়েস্ট ট্রফি জয়ের নায়ক মোহাম্মদ কাইফ।

Comments

comments