ফিলিস্তিন নিয়ে মার্কিন সম্মেলনে যোগ দিচ্ছে সৌদি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

খোদ ফিলিস্তিনিরা বয়কটের আহ্বান জানালেও মার্কিন নেতৃত্বাধীন ফিলিস্তিনে বিনিয়োগ সম্মেলনে যোগ দিচ্ছে সৌদি আরব ও সংযুক্ত আরব আমিরাত। ফিলিস্তিনে এই বিনিয়োগ পরিকল্পনা হচ্ছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ‘শতাব্দির শ্রেষ্ঠ চুক্তি’ ইসরায়েল-ফিলিস্তিন শান্তি পরিকল্পনার অংশ।

‘শান্তি থেকে উন্নয়ন’ শিরোণামের অর্থনৈতিক কর্মশালাটি যুক্তরাষ্ট্রের সহযোগিতায় ২৫ থেকে ২৬ জুন অনুষ্ঠিত হবে। ইতোমধ্যে ফিলিস্তিনি কর্মকর্তা ও ব্যবসায়ী নেতারা এই কর্মশালার নিন্দা জানিয়েছেন। ফিলিস্তিনে ক্ষমতাসীন দল পিএলও এবং হামাস আরব দেশগুলোকে এই সম্মেলন বয়কট করার আহ্বান জানিয়েছে।

সৌদি আরবের সরকারি বার্তা সংস্থা এসপিএ জানিয়েছে, সৌদি অর্থ ও পরিকল্পনামন্ত্রী সম্মেলনে যোগ দেবেন। এছাড়া সংযুক্ত আরব আমিরাতের বৈদেশিক সম্পর্ক ও আন্তর্জাতিক সহযোগিতা বিষয়ক মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, আবু ধাবিও সম্মেলনে তাদের প্রতিনিধি পাঠাবে।

২০১৭ সালের শেষ দিকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তেল আবিব থেকে মার্কিন দূতাবাস জেরুজালেমে সরিয়ে আনেন। একইসময় জেরুজালেমকে ইসরয়েলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেন তিনি। এরপর থেকে যুক্তরাষ্ট্রের শান্তি প্রচেষ্টা থেকে নিজেদের সরিয়ে নেয় ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ। তবে ট্রাম্প প্রশাসন মধ্যপ্রাচ্যের আরব মিত্রদেশগুলোর সহযোগিতা ও সমর্থন পাওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে ইসরায়েল-ফিলিস্তিন শান্তি পরিকল্পনার কাজ এগিয়ে নিয়ে যায়। ট্রাম্পের মধ্যপ্রাচ্য বিষয়ক পরমার্শক দলের নেতৃত্বে রয়েছেন তার জামাতা জেরাড কুশনার ও আঞ্চলিক কূটনীতিক জ্যাসন গ্রিনব্লাট। তারা মূলত অর্থনৈতিক সুবিধার বিষয়টিই শান্তি পরিকল্পনায় অগ্রাধিকার দিয়েছেন বলে মনে করা হচ্ছে। প্রস্তাবিত এই পরিকল্পনায় ফিলিস্তিনের পশ্চিম তীর ও গাজা উপত্যকায় বিদেশি বিনিয়োগকারীদের বিনিয়োগের জন্য উৎসাহ দেওয়া হয়েছে বলে জানানো হচ্ছে।

 

Comments

comments