নওগাঁয় বেড়েই চলেছে আমের ফলন

নিউজ ডেস্কঃ

আগে চারদিকে শুধু ধানক্ষেত দেখা যেতো। ২০০২ সালের পর থেকে ধীরে ধীরে সব আমবাগান হয়ে যাচ্ছে। এখানকার লোকজন নিজেরা আগে রাজশাহী বা চাঁপাইনবাবগঞ্জের আম খুঁজত। এখন নওগাঁর আম কিনতে বহু মানুষ আসে এই এলাকায়।

এটি বরেন্দ্র এলাকা। এ এলাকায় পানির পরিমাণ কম আবার সেচ সুবিধাও নেই। তাই মাটির বৈশিষ্ট্যের কারণেই প্রচুর ফলন হয় আমের। জেলায় এখন বছর জুড়েই আমের চারা বিক্রি হয়। তবে এখানে ফলনের পরিমাণ চাঁপাইনবাবগঞ্জের চেয়ে কম হয়।

নওগাঁয় নতুন নতুন বাগান হচ্ছে এবং ফলন বাড়ছে এটি সত্যি। কিন্তু মনে রাখতে হবে চাপাইতে একটি বড় গাছে যে পরিমাণ আম হয় নওগাঁয় একই ধরণের বড় গাছে সেই পরিমাণ আম হয়না। তবে নতুন মাটি ও নতুন নতুন গাছ হওয়ার কারণে দিন দিন ফলন বাড়ছে। তাছাড়া নওগাঁর গাছের আকার ছোটো।

গত কয়েকবছরে আম উৎপাদন এতো বেড়েছে যে অনেক আমের বাজার গড়ে উঠেছে এবং উপজেলা পর্যায়ে আড়তগুলো এখন জমজমাট।

এখন নওগাঁর আম চাপাইতে নিয়ে সেখান থেকে অন্যত্র বাজারজাত করেন অনেকে। আবার চাপাই থেকে অনেকে এসে নওগাঁয় বাগান কিনছেন। তাদের অভিজ্ঞতা আছে এবং বিনিয়োগও করছেন।

তাছাড়া আম চাষে নতুন নতুন কৌশলও আসছে বলে জানা যায়, যা ফলন বাড়াতে ও কোনো ক্ষেত্রে গাছে দীর্ঘদিন আম রেখে মৌসুমের শেষে বেশি দামে বিক্রি করেন অনেকে ব্যবসায়ী।

Comments

comments