আর্সেনিক মুক্ত করার প্রযুক্তি আবিষ্কার করলেন রাবি অধ্যাপক

রাবি প্রতিনিধিঃ

কম খরচে পানিকে আর্সেনিক দূষণমুক্ত করার প্রযুক্তি উদ্ভাবন করেছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) অধ্যাপক। ইতোমধ্যে প্রযুক্তিটি আর্সেনিক আক্রান্ত এলাকায় স্থাপনের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাও নেওয়া হয়েছে। সোমবার দুপুরে উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. মনজুর হোসেন এসব তথ্য জানান।

জাপানের তৈয়মা ইউনিভার্সিটির ওয়াটার ইঞ্জিনিয়ারিং অধ্যাপক ড. তমনুরি কাওয়াকামির সাথে উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. মনজুর হোসেনের গবেষণায় উদ্ভাবিত ওই প্রযুক্তিটির নাম ‘রিমোভাল অব আর্সেনিক থ্রু ইলেক্টনিক সিস্টেম’।

উদ্ভাবিত এই প্রযুক্তির বৈশিষ্ট্য সম্পর্কে গবেষক অধ্যাপক হোসেন বলেন, স্থানীয় উপকরণ ব্যবহারে উদ্ভাবিত এই প্রযুক্তিটি পরিবারের যে কেউ পরিচালনা করতে পারবেন। বিদ্যুৎ বা ব্যাটারি উভয়ই দিয়ে প্রযুক্তিটি চালানো যাবে। বাংলাদেশের আর্সেনিকের ভয়াবহ অবস্থা বিবেচনায় নিয়ে এটি উদ্ভাবন করা হয়েছে। স্থানীয় ইলেক্ট্রিশিয়ানরাও তৈরি করতে পারবেন টেকশই প্রযুক্তিটি। একসাথে ২০-৩০ লিটার পানি আর্সেনিক মুক্ত করা যায় এমন ব্যবস্থা করতে মাত্র ৮ থেকে ১০০০০ টাকা তৈরি হয়ে যাবে।

এ প্রযুক্তির বাস্তবায়ন সম্পর্কে তিনি বলেন আগামী জুলাই-আগস্ট মাসের দিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জের মহারাজপুর গ্রামে প্রযুক্তিটির একটি পাইলট প্রকল্প শুরু হবে। তিনি আরো বলেন, পরিবেশ বা স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকারক কোনো বর্জ্য তৈরি করবে না এই প্রযুক্তিটি।

এর আগে ২০১৪ সালের দিকে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূতত্ব ও খনিবিদ্যা বিভাগের পিএইচডি শিক্ষার্থী ফিরোজুর রহমানকে সাথে নিয়ে পানিকে আর্সেনিক মুক্ত করার জন্য ড. কাওয়াকামির সাথে গবেষণা শুরু করেন রাবি অধ্যাপক ড. মনজুর হোসেন।
দীর্ঘ ৫ বছরের প্রচেষ্টার পর এ বছরের মার্চ মাসে সম্পূর্ণ কাজ সমাপ্ত করতে পেরেছেন তারা।

Comments

comments