বন্যার্ত ৩০০ পরিবারের মাঝে বাকৃবি পরিবারের ত্রাণ বিতরণ

বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি:
ময়মনসিংহের খোদাবক্সপুর এলাকার বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেছে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় (বাকৃবি) পরিবার। শনিবার বেলা ১ টার দিকে ময়মনসিংহ জেলার গৌরীপুর উপজেলার অন্তর্গত খোদাবক্সপুর ইউনিয়নের প্রায় ৩০০ পরিবারের মাঝে ওই ত্রাণ বিতরণ করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. লুৎফুল হাসান।

প্রতিটি পরিবারকে চাল ৫ কেজি, ডাল ২ কেজি, আটা ২কেজি, লবণ ১ কেজি, চিনি ১ কেজি, চিড়া ১ কেজি, তেল ১ লিটার, মুড়ি হাফ কেজি, স্যালাইন ১০ প্যাকেট ও নগদ ৫০০ টাকা করে দেয়া হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের এক দিনের বেতনের জমাকৃত টাকার একাংশ দিয়ে ওই ত্রাণ কর্মসূচি পালন করা হয় এবং উদ্বৃত্ত অংশ দিয়ে আগামী সপ্তাহে জামালপুরের বন্যা দুর্গতদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করা হবে।

বন্যার্তদের ত্রাণ দেয়ার সময় উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. জসিমউদ্দিন খান, ছাত্রবিষয়ক উপদেষ্টা প্রফেসর ড. মে. ছোলায়মান আলী ফকির, শিক্ষক সমিতির সভাপতি প্রফেসর ড. মো. আবু হাদী নূর আলী খান, আওয়ামীপন্থী শিক্ষকদের সংগঠন গণতান্ত্রিক শিক্ষক ফোরামের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি প্রফেসর ড. এম. এ সালাম, ত্রাণ কর্মসূচির সদস্য সচিব প্রফেসর ড. এ. কে.এম. জাকির হোসেন, প্রক্টর প্রফেসর ড. মো. আজহারুল হক, সহযোগী ছাত্রবিষয়ক উপদেষ্টা প্রফেসর ড. মো. আজহারুল ইসলাম, ও ভাংনামারী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মফিজুন নূর খোকাসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনুষদের শিক্ষক-কমকর্তা, কর্মচারী ও বিভিন্ন ছাত্র সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন।

উপাচার্য প্রফেসর ড. লুৎফুল হাসান বন্যার্তদের উদ্দেশ্যে বলেন, বন্যা পরবর্তী সময়ে যখন পানি নেমে যাবে তখন আমরা বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে আপনাদের মাঝে বিনাধান-১১ ও ব্রি ধান ৭১ এর চারা প্রয়োজন অনুযায়ী সরবরাহ করবো। এ উদ্দেশ্যে ৫০০ কেজি ধানের বীজ থেকে চারা উৎপাদনের কাজ শুরু করা হয়েছে।

Comments

comments