এই প্রথম কাশ্মীরে উড়ল ভারতের জাতীয় পতাকা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

গত ৫ আগস্ট সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিলের মাধ্যমে কাশ্মীর থেকে বিশেষ মর্যাদা তুলে নেয়া হয়। এরপর থেকেই কাশ্মীরকে কেন্দ্র করে নানা রকম শঙ্কা, জল্পনা তৈরি হয়েছে। কাশ্মীরকে দু’ভাগে বিভক্ত করে কেন্দ্রীয় শাসনের অধীনে নিয়ে এসেছে ভারত।

এদিকে গত রোববার ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের রাজধানী শ্রীনগরে অবস্থিত সচিবালয় থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে কাশ্মীরের পতাকা। সচিবালয়ে উড়ানো হয়েছে ভারতের জাতীয় পতাকা।

স্বাধীনতার পর থেকে যে পৃথক মর্যাদা দেওয়া হয়েছিল কাশ্মীরকে তা তুলে নেয়ায় কাশ্মীর এখন ভারতের মানচিত্রে একটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল। সে কারণে এখন থেকে রাজ্য সচিবালয়ে শুধুমাত্র ভারতের জাতীয় পতাকাই থাকবে।

এর আগে জাতীয় পতাকা ছাড়াও কাশ্মীরের নিজস্ব একটি পতাকা ছিল। লাল রঙের উপর তিনটি লাইনের মাধ্যমে জম্মু, কাশ্মীর ও লাদাখ এই তিন অঞ্চলকে বোঝানো হতো। এই পতাকার মাধ্যমে কাশ্মীরের পৃথক মর্যাদা গণ্য হতো।

১৯৫২ সালে এটি সরকারিভাবে স্বীকৃতি পায়। কিন্তু ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিলের ফলে জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখ এই দুইভাগে বিভক্ত করা হয়েছে কাশ্মীরকে। এই সিদ্ধান্তের পর থেকেই কার্যত স্তব্ধ হয়ে পড়েছে উপত্যকা। ওষুধ, খাবারসহ একাধিক প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের জোগান বন্ধ রয়েছে। যদিও একথা অস্বীকার করছে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার।

Comments

comments