স্টোকসের অবিশ্বাস্য ইনিংসে ইংল্যান্ডের ইতিহাস গড়া জয়

স্পোর্টস ডেস্ক:

টেস্টে এর আগে কখনো ৩৩২ রানের বেশি তাড়া জেতেনি ইংল্যান্ড। সেখানে অস্ট্রেলিয়ার দেয়া লক্ষ্যাটা ছিল ৩৫৯। জিততে ইতিহাসই গড়তে হতো ইংলিশদের। ২৮৬ রানে ৯ উইকেট পড়ে যাওয়ায় পর অনেকেই অস্ট্রেলিয়ার জয় দেখছিল। কিন্তু বেন স্টোকসের অবিশ্বাস্য ইনিংসে হেডিংলিতে ইতিহাস গড়া জয় পেলো ইংল্যান্ড। দশম উইকেটে জ্যাক লিচের সঙ্গে ৭৬ রানের জুটি গড়ে স্টোকস ২১৯ বলে ১১ চার ও ৮ ছক্কায় ১৩৫ রানে অপরাজিত থাকেন। এই জয়ে পাঁচ ম্যাচের অ্যাশেজ সিরিজে ১-১ সমতা আনলো ইংল্যান্ড।

৩ উইকেটে ১৫৬ রান নিয়ে চতুর্থ দিন শুরু করে ইংল্যান্ড।

জো রুট ৭৫ ও বেন স্টোকস ২ রান নিয়ে ক্রিজে নামেন। অধিনায়ক রুট নামের পাশে আর ২ রান যোগ করেই আউট হন নাথান লায়নের বলে। এরপর জনি বেয়ারস্টোর সঙ্গে জুটি গড়ে ইংল্যান্ডকে জয়ের স্বপ্ন দেখাতে থাকেন বেন স্টোকস। তাদের কল্যাণে ৪ উইকেটে ২৩৮ রান নিয়ে মধ্যাহ্ন বিরতিতে যায় ইংল্যান্ড। দ্বিতীয় সেশনের শুরুতেই ৮ রানের ব্যবধানে ফেরেন বেয়ারস্টো (৩৮) ও জস বাটলার। ম্যাচের মোড় পাল্টে যায়। দলীয় ২৬১ রানে স্টোকস হারান ক্রিস ওকসকেও (১)। এরপর জফরা আর্চারকে নিয়ে জুটি গড়ার চেষ্টা করেছিলেন স্টোকস। কিন্তু দলীয় ২৮৬ রানে জোড়া উইকেট হারায় ইংল্যান্ড। আর্চারের পর (১৫) উইকেটে এসে মাত্র ২ বল টিকতে পারেন স্টুয়ার্ট ব্রড (০)। এরপর হাতখুলে খেলতে থাকেন স্টোকস। একের পর এক বাউন্ডারি হাঁকিয়ে দলকে এনে দেন জয়।

প্রথম ইনিংসে অস্ট্রেলিয়া করেছিল ১৭৯ রান। জবাবে ইংল্যান্ড গুটিয়ে যায় ৬৭ রানে। দ্বিতীয় ইনিংসে অস্ট্রেলিয়া সংগ্রহ করে ২৪৬।
টেস্টে ইংল্যান্ডের সাকসেসফুল রান চেজ

৩৫৯ বনাম অস্ট্রেলিয়া, হেডিংলি ২০১৯

৩৩২ বনাম অস্ট্রেলিয়া, মেলবোর্ন ১৯২৮/২৯

৩১৫ বনাম অস্ট্রেলিয়া, হেডিংলি ২০০১

৩০৫ বনাম নিউজিল্যান্ড, ক্রাইস্টচার্চ ১৯৯৬/৯৭

Comments

comments