আবরার হত্যার বিচার ও রাবি প্রশাসনের অপসারণ দাবি শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি:
বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদের হত্যার বিচার এবং দুর্নীতি ও নিয়োগ বাণিজ্যের অভিযোগে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) উপাচার্য ও উপ-উপাচার্যের অপসারণের দাবিতে আন্দোলন করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।

বুধবার বেলা ১১টায় পৃথক কর্মসূচি পালন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের দুর্নীতিবিরোধী শিক্ষকসমাজ ও সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ সিনেট ভবনের সামনে ‘স্বাধীনতাবিরোধী ও দুর্নীতিবাজ প্রশাসনের অপসারণ চাই’ ব্যানারে জড়ো হয়ে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করেন শিক্ষকরা। পরে সেখান থেকে তারা একটি প্রতিবাদী মিছিল বের করেন। মিছিলটি ক্যাম্পাসের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে ফের সিনেট ভবনের সামনে এসে মিলিত হয়।

এ সময় অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক ইলিয়াস হোসেন বলেন, প্রধানমন্ত্রী দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য দুর্নীতির বিরুদ্ধে যে যুদ্ধ ঘোষণা করেছেন আমরা সেটাকেই সমর্থন করছি। আমরা মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও বঙ্গবন্ধুর আদর্শে বিশ্বাসী। বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগ ও প্রশাসনের বিভিন্ন অকর্মকান্ডের বিরুদ্ধে আমরা আন্দোলনে নেমেছি। বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান প্রশাসনের অপসারণ না হওয়ার আগ পর্যন্ত আমরা আমাদের আন্দোলন অব্যাহত রাখবো।

এদিকে ‘বুয়েটের মেধাবী ছাত্র আবরার ফাহাদকে নিমর্মভাবে পিটিয়ে হত্যার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল’ ও ‘সন্ত্রাস ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়’ ব্যানারে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে সমাবেশ শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করেন শিক্ষার্থীরা। মিছিলটি ক্যাম্পাসের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে পুনরায় একই স্থানে এসে মিলিত হয়।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, আবরারের এ ঘটনার মধ্যে দিয়ে প্রমাণিত হয় যে, যদি কেউ দুর্নীতি ও অন্যায়ের বিরুদ্ধে কথা বলে তাহলে তার পরিণাম মৃত্যু। আবরারের নৃশংস হত্যা শুধু ছাত্রলীগের নৃশংসতা নয়। এটি দেশের পুরো সিস্টেমের নৃশংসতা। এছাড়া দেশের স্বার্থবিরোধী চুক্তি বাতিল, অনিয়ম ও দুর্নীতির সাথে জড়িত রাবি উপচার্য অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহান ও উপ-উপাচার্য চৌধুরী মো. জাকারিয়াকে দ্রুত অপসারণ দাবি জানাই আমরা।

Comments

comments