বাকৃবিতে নানা আয়োজনে বিশ্ব ডিম দিবস পালিত

বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি:
বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের পোল্ট্রি বিজ্ঞান বিভাগ আয়োজিত বিশ্ব ডিম দিবস-২০১৯ (১৭ অক্টোবর ২০১৯) বৃহস্পতিবার পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে গৃহীত কর্মসূচির মাঝে ছিল স্কুলের বাচ্চাদের সিদ্ধ ডিম খাওয়ানো, অনুষদের ছাত্র-ছাত্রী এবং শিক্ষকদের সমন্বয়ে বাকৃবি ক্যাম্পাসে বর্ণাঢ্য র্যালি এবং সেমিনার।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদিন মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. লুৎফুল হাসান।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. লুৎফুল হাসান বলেন, ডিমের পুষ্টিগুন সম্পর্কে মানুষকে অবহিত করার পাশাপাশি সুস্থ, সুন্দর ও এবং সবল দেহের জন্য সব বয়সের মানুষের প্রতিদিন ডিম খাওয়া উচিত। কেননা ডিম হচ্ছে এমন একটি পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ খাবার যার মধ্যে মানুষের শরীরের জন্য প্রয়োজনীয় প্রায় সব উপাদনই বিদ্যমান।

ভাইস-চ্যান্সেলর আরো বলেন, সমাজের বিভিন্ন অসংগতি দূর করতে বর্তমান সরকার কাজ করে যাচ্ছে। আমাদেরকেও নৈতিক অবক্ষয় রোধে যার যার অবস্থান থেকে ভূমিকা রাখতে হবে। মানুষের মধ্যে মমত্ববোধ সৃষ্টি করতে হবে যাতে সকলে মিলে সমাজে বসবাস করা যায়।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন পশুপালন অনুষদের ডীন প্রফেসর ড. মোঃ নূরুল ইসলাম, পশুসম্পদ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক নাথু রাম সরকার এবং অপসা এর সাধারণ সম্পাদক ড.এম.আলি ইমাম। পোল্ট্রি বিজ্ঞান বিভাগের প্রধান প্রফেসর মোঃ ইলিয়াস হোসেন এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মাঝে বক্তব্য রাখেন, প্রফেসর ড. এস.এম.বুলবুল, প্রফেসর ড. মোঃ মকবুল হোসেন, প্রফেসর ড. সুবাস চন্দ্র দাস। অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন প্রফেসর ড. মোঃ শওকত আলী।

বক্তরা আরো বলেন, ডিম হচ্ছে একটি সম্পূর্ন খাদ্য, একটি পূর্নাঙ্গ বাচ্চা উৎপাদনের সমস্ত পুষ্টি উপাদান ডিমের মধ্যে বিদ্যমান। শুধুমাত্র ভিটামিন সি ছাড়া সকল উপাদান ডিমের মধ্যে পাওয়া যায়। আমিষের জৈবিক মানের দিক থেকে এর অবস্থান সবার ওপরে। গবেষণায় দেখা গেছে দৈনিক ২টি করে ডিম খেলে দেহে বয়সের ছাপ পড়ে না। তাই আমাদের প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় ডিমকে অর্ন্তভুক্ত করা প্রয়োজন।

Comments

comments