ব্রেক্সিটের বাড়াতে ইইউকে জনসনের স্বাক্ষরবিহীন চিঠি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:
ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) থেকে ব্রিটেনের বের হয়ে যাওয়ার (ব্রেক্সিট) সময় বাড়ানোর অনুরোধ জানিয়ে ইইউর কাছে স্বাক্ষরবিহীন একটি চিঠি পাঠিয়েছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন।

ওই চিঠির সঙ্গেই স্বাক্ষর করা আরেকটি চিঠিতে জনসন লিখেছেন, ব্রেক্সিট পিছিয়ে দেওয়া হবে একটি ভুল পদক্ষেপ।

শনিবার নিজের করা ব্রেক্সিট চুক্তি হাউজ অব কমন্সের ভোটাভোটিতে তুলতে ব্যর্থ হন জনসন। এরপরই এক জ্যেষ্ঠ কূটনীতিককে ব্রেক্সিট বিলম্বিত করার অনুরোধ জানিয়ে স্বাক্ষরবিহীন পাঠানোর নির্দেশ দেন তিনি।

ইইউ কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড টাস্ক এক টুইটে জানিয়েছেন, তিনি ব্রেক্সিট বিলম্বিত করার অনুরোধের চিঠি পেয়েছেন। কীভাবে এর জবাব দেওয়া হবে সে বিষয়ে তিনি ইইউ নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করবেন।

৩১ অক্টোবর ব্রেক্সিটের শেষ সময় নির্ধারণ করা আছে। তবে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী চাইলে সময় বৃদ্ধির অনুরোধ জানাতে পারেন। অবশ্য প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নির্বাচনের পর গত মাসে জনসন বলেছেন, ব্রেক্সিট পেছানোর জন্য ‘মরে গেলও’ তিনি কোনো অনুরোধ জানাতে পারবেন না।

দ্য গার্ডিয়ান জানিয়েছে, ডোনাল্ড টাস্কের কাছে জনসন মোট তিনটি চিঠি পাঠিয়েছেন। এর মধ্যে একটি বেন অ্যাক্টের আওতায় স্বাক্ষর ছাড়া ব্রেক্সিট বিলম্বের অনুরোধ জানানোর চিঠির ফটোকপি; দ্বিতীয়টি, ইইউতে নিযুক্ত ব্রিটিশ দূতের লেখা ব্যাখ্যা সম্বলিত চিঠি এবং জনসনের ব্যক্তিগত চিঠি।

স্বাক্ষর করা চিঠিতে জনসন বলেছেন, ‘প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর থেকেই আমি বলে আসছি এবং আজ পার্লামেন্টের কাছে স্পষ্ট করে বলেছি, আমার দৃষ্টভঙ্গি ও সরকারের অবস্থান হচ্ছে, আরো সময় বাড়ালে যুক্তরাজ্য ও আমাদের ইইউ অংশীদারদের স্বার্থ এবং আমাদের মধ্যকার সম্পর্ক ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে।’

Comments

comments