স্ট্যামফোর্ড ছাত্রী রুম্পা হত্যার বিচার দাবি

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক:
স্টামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী রুবাইয়াত শারমিন রুম্পাকে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে- এমন অভিযোগ করে সুষ্ঠু তদন্ত ও বিচার দাবিতে ক্যাম্পাসে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করছেন বিশ্ববিদ্যালয়টির শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা। এর আগে ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল করেন তারা।

আজ শনিবার (৭ ডিসেম্বর) স্টামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সিদ্ধেশ্বরী ও ধানমণ্ডি ক্যাম্পাসে একযোগে এই কর্মসূচি পালিত হচ্ছে। মানববন্ধন থেকে শিক্ষার্থীরা রুম্পার হত্যাকারীদের দ্রুত গ্রেফতার করে সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিতের দাবি জানান তার সহপাঠিরা। এমনকি আজকের (শনিবার) মধ্যে একটা ফলাফল দেখতে চান তারা।

এর আগে অপরাধীর শাস্তি দাবিতে শুক্রবারও বিশ্ববিদ্যালয়ের সিদ্ধেশ্বরী ক্যাম্পাসের শিক্ষার্থীরা ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের সামনের সড়কে মানববন্ধন করেন। জড়িত ব্যক্তি গ্রেফতার না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন অব্যাহত রাখার ঘোষণা দেন তারা।

গত বুধবার রাতে সিদ্ধেশ্বরী সার্কুলার রোডে দুই ভবনের মাঝখানের এক গলি থেকে রুম্পার লাশ উদ্ধার করা হয়। আশপাশের কোনো ভবন থেকে পড়ে ওই তরুণীর মৃত্যু হয়েছে বলে ধারণা করলেও সে সময় তার পরিচয় জানতে পারেনি পুলিশ। পরে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় স্বজনরা মর্গে গিয়ে তার লাশ শনাক্ত করেন।

রুম্পা ঢাকার স্ট্যামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের প্রথম বর্ষে পড়তেন। মালিবাগের শান্তিবাগে মা ও ভাইয়ের সঙ্গে থাকতেন তিনি। তার বাবা রোকনউদ্দিন হবিগঞ্জ জেলা পুলিশে কর্মরত। রুম্পার লাশ উদ্ধারের ঘটনায় রমনা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন ওই থানার এসআই আবুল খায়ের।

তিনি বলেন, বুধবার সন্ধ্যার পর রুম্পা বাসা থেকে বেরিয়েছিলেন। সঙ্গে নিজের মোবাইল ফোনও নেননি তিনি। উঁচু থেকে পড়ে শরীরের যে ধরনের জখম হয়, রুম্পার শরীরে সে ধরনের আঘাতের চিহ্ন রয়েছে বলে জানান পুলিশ কর্মকর্তা খায়ের।

ময়নাতদন্ত শেষে বৃহস্পতিবার রাতেই রুম্পার লাশ তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়। তবে তার মৃত্যুর বিষয়টি এখনও স্পষ্ট নয় পুলিশের কাছে। এজন্য ময়নাতদন্ত প্রতিবেদনের অপেক্ষায় আছে তারা। রমনা থানার ওসি মনিরুল ইসলাম বলেন, “তার মৃত্যু কীভাবে হয়েছে এবং সেখানে কীভাবে তার মরদেহ পড়ে থাকল, সে বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

(Visited 11 times, 1 visits today)