ব্রোকলি চাষে সৌদি ফেরত রানার বাজিমাত

সাভার প্রতিনিধি:
ব্রোকলি চাষে প্রবাসী রানার ব্যাপক সাফল্য এসেছে। তিনি সাভার উপজেলার একজন বাসিন্দা। তিনি দীর্ঘদিন সৌদি আরবে থাকার পর দেশে ফিরে তার নিজ জমিতেই শুরু করেন বিভিন্ন প্রকার শাক-সবজির চাষ। গত বছরে পরীক্ষামূলকভাবে তিনি ব্রকলির চাষ শুরু করেছিলেন। গত বছর সাফল্য পাওয়ায় এই মৌসুমে আরও বেশি জমিতে বড় পরিসরে চাষ করেন ব্রকলির। আর তাতেই সাফল্যের দেখা পান তিনি।

রানা জানান, ব্রকলি চাষে লাভের সম্ভাবনা থেকেই মূলত বড় পরিসরে চাষ শুরু করি। গত কয়েক বছরে বেশ সাফল্য পেয়েছি। আমার এই চাষ দেখে অনেকেই আগ্রহী হয়ে শুরু করেছেন ব্রকলির চাষ। এ বিষয়ে তারা আমার কাছ থেকে নানা বিষয়ে পরামর্শ নিচ্ছেন।

রানা বলেন, এই বছর ব্রকলি চাষে বেশ সাফল্য পেয়েছি। সামনের বছরে আরও বেশি জমিতে ব্রোকলি চাষ করবো। আমাদের দেশের বাজারে দিন দিন ব্রকলির চাহিদা বৃদ্ধি পাচ্ছে। সঠিক পরিচর্যা ও পরিশ্রম করলে ব্রকলি চাষে সহজেই লাভবান হওয়া যায়।

রানা আরও বলেন, বিদেশ থেকে ফেরত আসার পর সবজি চাষে মনোনিবেশ করি। আর এতে বেশ সফলও হই। এখন আর বিদেশ যেতে মন চায় না। দেশে সবজির চাষ করেই বেশ লাভবান হওয়া যায়। এই মৌসুমে ব্রকলি চাষে ব্যাপক সাফল্য পাই। আমার উৎপাদিত সবজি স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে দেশের বিভিন্ন জেলায় যাচ্ছে।

স্থানীয় কৃষক আল-আমীন জানান, আমাদের দেশে ব্রকলি নতুন সবজি হলেও এখন এটি বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছে। দেখতে ফুলকপির মতো হলেও এই সবজিতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ও বিভিন্ন রোগ প্রতিরধি উপাদান। রানার দেখাদেখি অনেকেই ব্রকলি চাষ শুরু করেছেন। এখানকার চাষ হওয়া ব্রকলি স্থানীয় বাজারের চাহিদা মিটিয়ে বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চলে সরবরাহ করা হচ্ছে।

আরেক চাষি কাইয়ুম বলেন, আগে এই অঞ্চলে পুরনো সব সবজির চাষ করা হতো। তবে দিন দিন বিদেশি জাতের নতুন সব সবজি চাষে ঝুঁকছেন এখানকার স্থানীয় কৃষকেরা। এসব সবজির মধ্যে ব্রকলি অন্যতম। এছাড়াও ক্যাপসিকাম, অ্যাসপারাগাস, চেরি টমেটো, সুইটকর্ন, ব্রোকলি, বেবি কর্ন, আইজ বাক লেটুস, বিট রুট, থাই আদা, থাই পাতা, স্কোয়াশ, নীলাপাতা, বানচিং অনিয়ন, রেড ক্যাবেজসহ বিভিন্ন সবজির চাষ করা হচ্ছে।

এখানকার চাষ হওয়া বিদেশি জাতের এসব সবজি ঢাকার চাইনিজ রেস্তোরাগুলোতে যাচ্ছে। উৎপাদিত সব সবজিই চাইনিজ রেস্তোরাগুলোই কিনে নিয়ে যাচ্ছে।

সাভারের কৃষি অফিসার নাজিয়াত আহমেদ জানান, চলতি মৌসুমে এই অঞ্চলে প্রায় ৮০ হেক্টর জমিতে নতুন জাতের এই সব সবজির চাষ করা হয়েছে। এখানকার উৎপাদিত সবজিগুলো নতুন হলেও দেশের বাজারে বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছে। আমাদের পক্ষ থেকে তাদের সব ধরণের সহযোগিতা ও পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।

(Visited 13 times, 1 visits today)