জমিতেই নষ্ট হচ্ছে টমেটো

নিউজ ডেস্কঃ

জামালগঞ্জে জমিতেই নষ্ট হচ্ছে টমেটো। মন্নানঘাট পাইকারি বাজারে ৪০ টাকা মণ দরে বিক্রি হওয়া টমেটো শহরে বিক্রি হচ্ছে ১৫ টাকা কেজি। এবার সেখানকার বন্যার ক্ষতি পোষাতে ব্যাপক হারে চাষ করা হয়েছে টমেটো। কিন্তু কোভিড-১৯ এর কারণে কোম্পানীগুলো বন্ধ হয়ে যাওয়ায় মাথায় হাত পড়েছে টমেটো চাষীদের। অনেকের জমিতেই পঁচে নষ্ট হচ্ছে টমেটো।

জামালগঞ্জ উপজেলা কাশিপুর গ্রামের ইয়ার আলী জানান, ২ বিঘা জমিতে চাষ করেছিলেন গ্রীষ্মকালীন টমেটো। ফাল্গুন মাসের প্রথম দিকে প্রায় ৫০ হাজার টাকার টমেটো বিক্রি করতে পেরেছেন। কিন্তু ওই টাকায় তার টমেটোর খরচ ওঠেনি। তিনি গত বছর ২ বিঘা জমিতে টমেটো চাষ প্রায় লাখ টাকা আয় করেছিলেন।

তিনি আরো জানান, এবার একই জমিতে টমেটো চাষ করে তা বিক্রি করতে না পারায় পড়েছেন বিপাকে। প্রতি বিঘায় ২০০ মণ থেকে ২৫০ মণ টমেটোর ফলন হয়। পাইকারি বাজারের পাশাপাশি দেশের বিভিন্ন সস কোম্পানীতে এই এলাকার টমেটো সরবরাহ করা হতো। কিন্তু এ বছর কোম্পানীগুলো টমেটো না নেওয়ার কারণে জমিতেই পচে নষ্ট হচ্ছে টমেটো।

কৃষক ইয়ার আলীর মতো একই অবস্থা রামপুর, কাশিপুর, শরীফপুর, চাঁনপুর, সংবাদপুর গ্রামের টমেটো চাষীদের।

কৃষি বিভাগ বলছে, অন্য বছরের তুলনায় এবার টমেটো অনেক বেশি চাষ করা হয়েছে। এবং দেশের অন্য স্থানেও লাভ বেশি হওয়ার কারণে অনেকেই টমেটোর চাষ করেছেন। চলমান সঙ্কটে এই ক্ষতি পুষিয়ে নিতে মাঠ পর্যায়ে কৃষকদের পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।

পাইকারি ব্যবসায়ীরা বলছেন আড়তে কম দামে কিনলেও টোল পরিবহন খরচ দিয়ে তাদের বেশি দামে বিক্রি করতে হচ্ছে। এছাড়া এক সাথে অনেক টমেটো উৎপাদন হওয়ায় চাহিদা কমে যাওয়ায় হঠাৎ করে টমেটোর দাম নেমে গেছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
ad0.3

Tags: