রাবিতে কর বিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত

রাবি সংবাদদাতা:

বরেন্দ্র উন্নয়ন প্রচেষ্ঠার উদ্যোগে কর ও বাজেট বিষয়ে সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে। মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের গ্যালারিতে এ সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের সহযোগীতায় সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বরেন্দ্র উন্নয়ন প্রচেষ্টার পরিচালক ফয়জুল্লাহ চৌধুরী।

অর্থনীতি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক যিনাতুল ইসলামের সঞ্চালনায় সেমিনাবে আলোচক হিসেবে ছিলেন বিভাগের প্রফেসর কেবিএম মাহবুবুর রহমান, প্রফেসর মোয়াজ্জেম হোসেন খান।কর আদায়ে স্বল্প আয়ের মানুষের ওপর সামাজিকভাবে যে প্রভাব পড়ছে তা থেকে উত্তরনের জন্য অনলাইন ও অফলাইন যোগাযোগ মাধ্যমের সাহায্যে জনগণকে সচেতন করার জন্যে তরুণদের এগিয়ে আসতে এ সেমিনারের আয়োজন করা হয়।

সেমিনারে অর্থনীত বিভাগের সভাপতি প্রফেসর মোহাম্মদ আলীর সভাপতিত্বে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বিভাগের প্রফেসর এএনকে নোমান।সেমিনারে বক্তারা গরীব ও ধনীদের কর প্রদানে বৈষম্যের কথা উল্লেখ করে বলেন, আমাদের দেশে গরীরদের কাছে যে হারে কর আদায় করা হয়, একই হারে ধনীদের কাছে থেকেও কর আদায় করা হয়। আবার যে কর দিচ্ছে তার সুষম বন্টন থেকেও বঞ্চিত হচ্ছেন এদেশের স্বল্প আয়ের মানুষরা।

কর আদায়ে ভারত ও পাকিস্তানের অগ্রগতির কথা উল্লেখ করে বলেন, যেখানে ভারতে মোট জনসংখ্যার শতকরা ১৮ শতাংশ ও পাকিস্তানে ১৫ শতাংশ কর আদায় করতে সক্ষম হয়েছে, সেখানে বাংলাদেশে মোট জনসংখ্যার ১২ শতাংশ জনগণের কাছে থেকে কর পাচ্ছেন।আমলাদের অবহেলার কারণেই কর ফাঁকি দিয়ে পার পেয়ে যাচ্ছেন অনেকেই। সরকার চাইলেই এ কর ফাঁকি ঠেকাতে এবং কর আদায়ের পরিমাণ বৃদ্ধি করতে পারে বলে জানিয়েছেন বক্তরা।

বক্তারা বলেন, বর্তমানে পুরো দেশে যে পরিমান ব্যক্তি-প্রতিষ্ঠান কর দিচ্ছে, ঢাকাতেই সে পরিমাণ কর আদায় করা সম্ভব।বক্তারা গরীব ও ধনীদের ক্ষেত্রে আলাদা কর আদায়ের হার নির্ধারণ এবং জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে আলাদাভাবে বাজেট প্রনয়নের দাবি জানান।সেমিনারে মুক্ত আলোচনায় অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীরা বাজেট প্রণয়নের ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে অপেক্ষাকৃত দরিদ্র জেলাগুলোতে বেশি বাজেট দেয়ার দাবি জানান।

  •  
  •  
  •  
  •  
ad0.3