উচ্চ ধাপে নির্ধারণ হচ্ছে প্রাথমিক শিক্ষকদের বেতন

নিউজ ডেস্কঃ

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বেতন উচ্চ ধাপে নির্ধারণ হচ্ছে বলে বুধবার (২৯ জুলাই) জানিয়েছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মো. আকরাম-আল-হোসেন।

এ নিয়ে বুধবার গণশিক্ষা সচিব অর্থ সচিবের সঙ্গে কথা বলেছেন বলে জানিয়েছে মন্ত্রণালয়। পরে আকরাম-আল-হোসেন ফেসবুকেও এ নিয়ে একটি বার্তা দিয়েছেন। সেখানে প্রাথমিক ও গণশিক্ষার সচিব লিখেছেন, ‘… আজ অর্থ বিভাগের সচিবের সঙ্গে আপনাদের উচ্চ ধাপে বেতন নির্ধারণের বিষয়ে কথা বলেছি। তিনি উচ্চ ধাপে আপনাদের বেতন নির্ধারণ হবে মর্মে আমাকে কথা দিয়েছেন এবং খুব দ্রুত জিও জারি করবেন বলে আমাকে জানিয়েছেন। এটি একটি বিশাল অর্জন।’

এর আগে মঙ্গলবার (২৮ জুলাই) সাড়ে তিন লাখ প্রাথমিক শিক্ষকের বেতন নিয়ে সৃষ্ট জটিলতা নিরসনে অর্থ মন্ত্রণালয়ে চিঠি পাঠায় প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উপসচিব শামীম আরা নাজনীন স্বাক্ষরিত চিঠিতে বলা হয়েছে, অর্থ বিভাগের ০৭/১১/২০১৯ তারিখের ০৭.০০.০০০০.১৬১.৩৮.০০.০০১.১৭-৩০৮ সংখ্যক পত্রের সম্মতিক্রমে এ মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকদের বেতন গ্রেড-১৪ (প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত) এবং বেতন গ্রেড-১৫ (প্রশিক্ষণবিহীন) থেকে গ্রেড-১৩ তে উন্নীত করা হয় (সংলাপ-১) এবং প্রধান শিক্ষকদের গ্রেড-১২ (প্রশিক্ষণবিহীন) থেকে গ্রেড-১১ তে উন্নীত করে। কিন্তু শিক্ষকগণের বর্তমান মূল বেতনের নিম ধাপে বেতন নির্ধারণের কারণে অনেক শিক্ষকের বেতন কমে যাচ্ছে। এতে তারা বেতন বৈষম্যের স্বীকার হচ্ছেন। সে কারণে মাঠ পর্যায়ে বেতন ফিক্সেশন হচ্ছে না।

সারাদেশে ৬৫ হাজার ৬২০টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৩ লাখ ৫৪ হাজার ৭৭২ জন শিক্ষক কর্মরত আছেন। সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক এবং প্রধান শিক্ষকদের বেতন স্কেল উন্নীতকরণ শিক্ষা ক্ষেত্রে সরকারের একটি যুগান্তকারী সিদ্ধান্ত হওয়া সত্বেও শিক্ষকগণের বর্তমান মূল বেতনের নিম্নধাপে বেতন নির্ধারণের কারণে মাঠ পর্যায়ে শিক্ষকদের মাঝে হতাশা এবং অসন্তোষ বিরাজ করছে। ফলে সরকারের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হওয়ার পরিবর্তে ক্ষুন্ন হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে।

বেতন স্কেল উন্নীতকরণ ও বেতন নির্ধারণের বিষয়ে একটি শিক্ষক প্রতিনিধি দল মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে গেলে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রীর সচিব মহোদয়ের নির্দেশে প্রতিনিধি দলটি অর্থ সচিব মহোদয়ের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। তদপ্রেক্ষিতে অর্থ সচিব মহোদয় উচ্চ ধাপে বেতন নির্ধারণের বিষয়ে শিক্ষক প্রতিনিধি দলকে প্রতিশ্রুতি প্রদান করেছিলেন।

ভূমি মন্ত্রণালয়ের অধীন কানুনগো/উপসহকারী সেটেলমেন্ট অফিসার পদধারীদের উন্নীত বেতন নির্ধারণে এরূপ সমস্যার অর্থ বিভাগ কর্তৃক ২৬/১১/২০১৯ তারিখের ০৭.০০.০০০০.১৬১.৩১.০০৭.১২-৩৪১ সংখ্যক পত্রের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট স্কেলের উচ্চধাপে বেতন নির্ধারণ করে বৈষম্য নিরসনের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে (সংলাগ-২)। একই নির্দেশনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হলে মাঠ পর্যায়ে শিক্ষকদের মাঝে সৃষ্ট অসন্তোষ নিরসন হবে মর্মে প্রতীয়মান হয়।

এ অবস্থায়, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকদের বেতন বৈষম্য দূরীকরণের লক্ষ্যে ভূমি মন্ত্রণালয়ের অধীন কানুনগো/উপসহকারী সেটেলমেন্ট অফিসার পদধারীদের ন্যায় সংশ্লিষ্ট বেতন স্কেলের উচ্চধাপে বেতন নির্ধারণে অর্থ বিভাগ কর্তৃক জারিকৃত ২৬/১১/২০১৯ তারিখের ০৭.০০.০০০০.১৬১.৩১.০০৭.১২-৩৪১ সংখ্যক পত্রের অনুরূপ নির্দেশনা জারির জন্য নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হল।

  •  
  •  
  •  
  •