অভিনব পদ্ধতিতে বোতলে বারো মাস পেঁয়াজ চাষ

পঞ্চগড় প্রতিনিধি:
পেঁয়াজের মূল্যকে কেন্দ্র করে কিছুদিন ধরেই উত্তাল ছিল পরিস্থিতি। দুশো’ আড়াইশ’ টাকা কেজিতে পেঁয়াজ কেনার অভিজ্ঞতা জনগণের ছিল না এর আগে। একারণেই পেঁয়াজ উৎপাদনের বিশেষ ব্যবস্থার কথাও ভাবতে হয়েছে। এমনি একটি ব্যক্তি উদ্যোগের কথা সম্প্রতি আলোচনায় এসেছে। বাজার থেকে চড়া দামে পেঁয়াজ কেনার বদলে পরিবারের জন্য সারা বছরের প্রয়োজনীয় পেঁয়াজ নিজেই চাষের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এক কৃষক।

বোতলে পেঁয়াজ চাষের এই উদ্যোগ নেন পঞ্চগড় জেলার তেঁতুলিয়া উপজেলার তিরনইহাট ইউনিয়নের ডাঙ্গাপাড়া গ্রামের আতাউর রহমান খান। তিনি শুরুতে একটি বোতলে পরীক্ষামূলক এই পেঁয়াজ চাষ করেন। স্বল্প খরচে অল্প দিনেই ভাল ফল পান। এরপর তিনি তার বাড়িতে আরও কিছু বোতলে পেঁয়াজ চাষের সিদ্ধান্ত নেন।

আতাউর রহমান খান জানান, পেঁয়াজের কেজি দুশো’ থেকে আড়াইশ’ টাকায় ওঠায় তিনি বোতলে বারো মাস পেঁয়াজ চাষ করার সিদ্ধান্ত নেন। শুরুতে একটি বড় প্লাস্টিকের বোতল পানি ও জৈব সার দিয়ে ভরাট করেন। তারপর বোতলটির গায়ে ছোট ছোট ছিদ্র করে দেন। বাজার থেকে একেবারে ছোট পেঁয়াজ কিনে তা ওই বোতলে রোপণ করেন। এক সপ্তাহের মধ্যেই বোতলের ছিদ্র দিয়ে পেঁয়াজের পাতা গজাতে থাকে। তিন মাসের মধ্যেই এই পেঁয়াজ তোলা যায়। প্রতিটি আড়াই লিটারের বোতলে আধা কেজি পেঁয়াজ রোপণ করা যায়। সর্বোচ্চ ৫০টি পেঁয়াজ এক বোতলে রোপণ করা যাবে। প্রতিটি বোতলে রোপণ করা আধা কেজি পেঁয়াজ থেকে চার থেকে পাঁচ কেজি পর্যন্ত পেঁয়াজের ফলন পাওয়া যায়। এই প্রক্রিয়ায় একটি বোতল থেকে বছরে চার ধাপে আধা মণ পেঁয়াজ উৎপাদন করা সম্ভব।

তিনি আরও বলেন, ‘এই পদ্ধতিতে খুব সহজেই বাড়ির ভেতরে কিংবা ছাদে পেঁয়াজ চাষ করা যায়। এটি সুবিধামতো যেখানে সেখানে বহন করা যায়। তেমন কোনও পরিশ্রম হয় না। ক্ষেতের পেঁয়াজের চাইতে দ্রুত বেড়ে ওঠে। সবচেয়ে বড় কথা হলো, এই পেঁয়াজ বারো মাস চাষ করা যায়। আমি আমার পরিবারের পেঁয়াজের চাহিদা মেটাতে বোতলে বারো মাস পেঁয়াজ চাষ শুরু করেছি। সবাই এভাবে চাষ করলে পেঁয়াজের আর সংকট থাকবে না। ঘরের পেঁয়াজেই চলে যাবে।’

ইতোমধ্যে আরও ১০-১৫টি বোতলে পেঁয়াজ চাষের প্রস্তুতি নিয়েছেন বলেও জানান আতাউর রহমান।

তেঁতুলিয়া উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ‘বাড়ির আনাচে কানাচে, বারান্দা বা উঠানে এই বোতলের সাহায্যে পেঁয়াজ চাষ করা যায়। স্বল্প খরচে স্বল্প পরিসরে এভাবে পেঁয়াজ চাষ করা সম্ভব। আমরা অন্য কৃষকদেরও এই বিষয়ে উদ্বুদ্ধ করছি। এটা একটি ইনোভেটিভ প্রোগ্রাম।’

  •  
  •  
  •  
  •