সাইবার হামলা চালিয়ে ভ্যাকসিন গবেষণার তথ্য চুরি করছে চীনা হ্যাকাররা

নিউজ ডেস্কঃ

যুক্তরাষ্ট্রে কোভিড-১৯ রোগের ভ্যাকসিন নিয়ে গবেষণা চলছে এমন গবেষণারগুলোতে সাইবার হামলা চালিয়ে তথ্য চুরি করছে চীনা হ্যাকাররা। আর এসব হ্যাকারকে মদদ দিচ্ছে দেশটির সরকার। যুক্তরাষ্ট্রের বিচার বিভাগ সংক্রান্ত মন্ত্রণালয় এমন অভিযোগ তুলেছে বেইজিংয়ের বিরুদ্ধে। খবর বিবিসির।

বিবিসির খবরে বলা হচ্ছে, চীনের সাইবার গুপ্তচরবৃত্তির ওপর যুক্তরাষ্ট্রের চলমান একটি অভিযানের মধ্যেই এমন অভিযোগের খবর আসলো। এর আগে গত সপ্তাহে যুক্তরাজ্য, যুক্তরাজ্য এবং কানাডা কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন গবেষণা সংক্রান্ত তথ্য চুরির জন্য রাশিয়ার বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছিল।

মার্কিন বিচার বিভাগ সংক্রান্ত মন্ত্রণালয় চীনের ইলেট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের দুই শিক্ষার্থী লি জিয়াওউ এবং ডং জিয়াঝির বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ মঙ্গলবার প্রকাশ্যে জানিয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে বাণিজ্য সংক্রান্ত গোপন তথ্য চুরি এবয় প্রতারণার অভিযোগও তোলা হয়েছে।

অভিযোগগুলো কী?

কৌসুলিঁরা বলছেন, ওই দুই চীনা নাগরিক গত জানুয়ারিতে ম্যাসাচুসেটস বায়োটেক ফার্মের ওপর গুপ্তরচরবৃত্তি করে। কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন নিয়ে গবেষণা করছিল ওই প্রতিষ্ঠানটি। এছাড়া ম্যারিল্যান্ডের একটি কোম্পানি কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন নিয়ে গবেষণা করছে এমন ঘোষণা দেওয়ার পর সেখানেও হামলা চালায় তারা।

কর্মকর্তার বলছেন, অভিযুক্তরা ব্যক্তিগতভাবে এই হ্যাংকিংয়ের কাজ করলেও মাঝেমধ্যেই চীনের গোয়েন্দা সংস্থার এজেন্টদের কাছ থেকে সহায়তা পান। চীনের জাতীয় নিরাপত্তা বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তাও এসব হ্যকারাকে সহায়তা করেন বলে যুক্তরাষ্ট্র অভিযোগ তুলেছে।

কৌসুলিঁদের আরও অভিযোগ, ২০০৯ সালের শুরুতে অভিযুক্তরা হাজার কোটি ডলারের বাণিজ্য সংক্রান্ত গোপন তথ্য, বুদ্ধিবৃত্তিক সম্পদ এবং মূল্যবান ব্যাবসায় সংক্রান্ত তথ্য চুরির সঙ্গেও যুক্ত। চীন থেকেই দেশটির সরকারের এমন মদদে তারা এই অপকর্ম করে যাচ্ছেন বলে অভিযোগ তোলা হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্র ছাড়াও অস্ট্রেলিয়া, বেলজিয়াম, জার্মানি, জাপান, লিথুয়ানিয়া, নেদারল্যান্ডস, স্পেন সুইডেন এবং যুক্তরাজ্যের মতো দেশের প্রতিষ্ঠানগুলোর এমন সাইবার হামলা চালানো হচ্ছে। যুক্তরাজ্যের কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ফার্ম, স্পেনের ডিফেন্স কনট্রাক্টর ও অস্ট্রেলিয়ার সোলার এনার্জি কোম্পানিতেও সাইবার হামলা হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •